স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অপসারণ চান বিএনপির সাংসদ হারুনুর রশীদ

প্রকাশিত: ৮:১৯ অপরাহ্ণ, জুন ২৩, ২০২০
চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপির সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ। ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ‘পরিপূর্ণভাবে ব্যর্থ‘ হয়েছে অভিযোগ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের অপসারণ দাবি করেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে এ দাবি করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য।

সাংসদ হারুন বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজিকে ফোন করে মেসেজ দিয়ে সাড়া পাওয়া যায় না। ওই অফিসের পিএস, পিএ, পরিচালক কেউই ফোন ধরেন না।’

চীনা বিশেষজ্ঞরা বাংলাদেশের করোনা ব্যবস্থাপনা পরিস্থিতিতে হতাশা প্রকাশ করেছেন উল্লেখ করে সংসদ সদস্য বলেন- ‘স্বাস্থ্য অধিদপ্তর একটি বিকলাঙ্গ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। এইগুলো পরিবর্তন করেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে সরিয়ে দেন। তাদের সরিয়ে দিয়ে এই পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য উপযুক্ত ও প্রতিশ্রুতিশীল ব্যক্তিদের সেখানে বসাতে হবে।’

দেশে করোনাভাইরাস চিকিৎসায় অব্যবস্থাপনার অভিযোগ এনে হারুনুর রশীদ বলেন, ‘বিএমএ আওয়ামী লীগের একটি প্রতিষ্ঠান। তারা বলছে, করোনা চিকিৎসায় মৃত্যুর দায় মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তরের। এটা বাস্তব কথা। করোনার এই দুঃসময়ে কিট বা করোনার সামগ্রী, কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসকদের কী দুরবস্থা! রোগীরা কী অবস্থায় আছেন, কোনো খবর নেই। এই পরিস্থিতি দীর্ঘস্থায়ী হলে তা দেশের জন্য বিরাট চ্যালেঞ্জ হবে। জাতীয় যে সংকট তৈরি হয়েছে, তা থেকে উত্তরণের জন্য জাতীয় ঐক্য দরকার।’

আলোচনায় অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশে সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ বলেন, ‘উন্নয়নের রাজনীতির চিন্তাভাবনা বাদ দিতে হবে। দেশ বাচাঁও, মানুষ বাঁচাও-এর রাজনীতি করতে হবে। উন্নয়নের ব্যয় কমাতে হবে। প্রয়োজনে মন্ত্রী পরিষদের আকার ছোট করতে হবে। এর মাধ্যমে ব্যয় কমিয়ে মানুষকে বাঁচানোর পদক্ষেপ নিয়ে সুনির্দিষ্টভাবে অগ্রসর হতে হবে।’

পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের সমালোচনা করে বিএনপির এই সংসদ সদস্য বলেন, ‘আইজিপি সাহেব নতুন নতুন ওসিয়ত দিচ্ছেন। উনার কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই, আপনি বাংলাদেশের আমানত নষ্ট করেছেন। মানুষের হক নষ্ট করেছেন। প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনের আয়োজন করেছেন। তার জবাবদিহিতা আপনাকে করতে হবে না?’

‘গত নির্বাচনের সময় পুলিশকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। এই পুলিশ দিয়ে সৎ প্রশাসন গড়ে তোলা সম্ভব নয়। আর সত্য বলতে গেলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা হৈ চৈ করবেন’, যোগ করেন এই সংসদ সদস্য।