স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই , চলছে শেষ মূহুর্তের ঈদের কেনাকাটা

প্রকাশিত: ২:৪৪ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০২০
ছবিঃ সংগৃহীত

স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই রাজধানীতে চলছে শেষ মূহুর্তের ঈদের কেনাকাটা। গত কয়েক দিনের তুলনায় আজ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ক্রেতা সমাগমও চোখে পড়ার মতো। তবে দেশে করোনার ভয়াবহতা যতই বাড়ছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রবণতা ততই কমে যাচ্ছে। নেই সামাজিক দূরত্ব। কেনাকাটার ক্ষেত্রে শপিং মলগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যবস্থা থাকলেও ছোট মার্কেটগুলি এর ব্যতিক্রম। ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধিও মানা হচ্ছেনা এখানে। ফলে বাড়ছে সংক্রমণের ঝুঁকি।

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এবং প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক প্রফেসর ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ বলেছেন, জাঁকজমক করে ঈদ করার চেয়ে জীবন বড়। বেঁচে থাকলে উৎসব করে মার্কেট করে আবার ঈদ করা যাবে। কিন্তু ঈদ করতে গিয়ে যেন জীবন ঝুঁকিতে না পড়ে সেদিকে সবার নজর দিতে হবে।

সূত্র মতে, বসুন্ধরা শপিং মল, যমুনা ফিউচার পার্কসহ বড় বড় বড় শপিং মল বন্ধ থাকলেও বিভিন্ন মার্কেটে বিক্রি বাট্টা চলছে। বিশেষ করে ফুটপাত ও সড়কের পাশের দোকানগুলোতে ভিড় বেশি।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের ভাইরোলজি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ডা. জাহিদুর রহমান বলেন, যারা ঈদের বাজার করতে যাচ্ছেন তাদের পক্ষে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, শুধুমাত্র মাস্ক আর গ্লাভস পরলেই করোনা থেকে নিরাপদ থাকা সম্ভব নয়। তাহলে এতো সংখ্যক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী সংক্রমিত হতো না। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় এক্ষেত্রে ঝুঁকি আরও বাড়বে।
এ বিষয়ে একমত পোশন করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক প্রফেসর ডা. নাসিমা সুলতানা। তিনি বলেছেন, আমারা বলেছি ঘরে থাকতে, জনসমাগম এড়িয়ে চলতে, নয়তো করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রোধ করা যাবে না। এর ব্যতিক্রম হলে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়বে- এটাই স্বাভাবিক।