সীমান্তে ১২ জন নারী-পুরুষ পুশইনের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিলো বিজিবি

প্রকাশিত: ১১:৪০ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০

কসবা সীমান্ত দিয়ে ৭ শিশুসহ ১২ জন নারী-পুরুষের বাংলাদেশে পুশইনের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি)। বাধাঁর মুখে গত ৩ দিন ধরে সীমান্তের শূন্য রেখায় ভারতীয় সীমানায় অবস্থান করছে ওই সকল নারী-পুরুষরা।

অনাহার ও অর্ধাহারে তারা মানবেতর দিন পার করছে বলে ভারতীয় নাগরিক জাকির হোসেন টেলিফোনে বাংলাদেশের সাংবাদিকদের জানায়।

এ নিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় দু’দেশের কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক হলেও তথ্য প্রমাণের অভাবে তারা কোন দেশের নাগরিক তা শনাক্ত করা যায় নি। বিজিবির পক্ষ থেকে সীমান্ত এলাকায় টহল জোরদার করা হয়েছে।

সমাধানের লক্ষ্যে পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতেৃত্ব দেন বিজিবির কসবার কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার করিম উদ্দিন প্রধান এবং ভারতের বিএসএফের পক্ষ নেতৃত্ব দেন কমলাসাগর বিএসএফ ক্যাম্পের পরিদর্শক প্রবেশ কুমার।

বিজিবি ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- কসবা পৌর শহরের হাকর এলাকার ভারত সীমান্তের ২০৩৯/১২ এস পিলারের নিকট দিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় ৭জন শিশুসহ ১২জন নারী-পুরুষ কাঁটাতারের বেড়া পার করে বাংলাদেশে পুশইন করার চেষ্টা করে বিএসএফ। এই সময় টহলরত বিজিবি বাঁধা দেয়।

এই নিয়ে শনিবার সন্ধায় ওই এলাকায় বিজিবির কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠক হয়। বৈঠক বলা হয়েছে- বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে লকডাউন চলছে। কাউকে বাংলাদেশে পুশইন করা যাবে না। ওই বৈঠকের পরও ১২জন নারী-পুরুষকে সীমান্তের শূণ্য রেখায় ভারতীয় এলাকায় সোমবার দুপুর পর্যন্ত অবস্থান করতে দেখা গেছে।

এই ব্যাপারে বিজিবির ৬০ ব্যাটেলিয়ন অধিনায়ক (সিও) লে. কর্ণেল এস এম মেহেদী হাসান বলেন- আটকে পড়া মানুষগুলোর সঠিক পরিচয় পাওয়া যায় নি। তাই তারা বিএসএফের পুশইনের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে। এই ঘটনা নিয়ে এলাকায় বিএসএফ বিজিবি স্ব-স্ব সীমানায় টহল জোরদার করেছে।