‘সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধ করতে হবে’

প্রকাশিত: ৬:২৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২১
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, সুস্থতার জন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার মাধ্যমে এডিস মশা, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর দক্ষিণখানে আশকোনা হাজী ক্যাম্প এলাকায় এডিস মশা নিধনে চিরুনি অভিযান এবং জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আতিক এ কথা বলেন।

মেয়র আতিক বলেন, সুস্থতার জন্য সুস্থ পরিবেশের কোনো বিকল্প নেই। আর, সুস্থ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সংক্রান্ত সামাজিক আন্দোলনে সমাজের সর্বস্তরের জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে।

মেয়র আরও বলেন, সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে ‘১০টায় ১০ মিনিট প্রতি শনিবার, নিজ নিজ বাসাবাড়ি করি পরিষ্কার’—এই স্লোগানটি বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি বলেন, ব্যক্তিগত, সরকারি কিংবা বেসরকারি যেকোনো ভবনেই এডিসের লার্ভার উপস্থিতি পাওয়া গেলে জরিমানাসহ প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত রয়েছে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, নিজেদের বাসাবাড়িতে ফুলের টব, অব্যবহৃত টায়ার, ডাবের খোসা, চিপসের খোলা প্যাকেট, বিভিন্ন ধরনের খোলা পাত্র, ছাদ কিংবা অন্য কোথাও যাতে তিন দিনের বেশি পানি জমে না থাকে, সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরবাসীর জন্য ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪৬টি নগর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিনামূল্যে ডেঙ্গু জ্বরের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মেয়র আতিক বলেন, এরই মধ্যে বর্ধিত মহানগরীর নতুন ১৮টি ওয়ার্ডের সড়ক, অবকাঠামো এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা নির্মাণ ও উন্নয়নের জন্য প্রায় চার হাজার ২৬ কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদিত হয়েছে। ডিএনসিস মেয়র বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন কাজ করে যাচ্ছে। অন্যান্য বছর সামান্য বৃষ্টিতেই ডিএনসিসির বিভিন্ন এলাকায় রাস্তাঘাট ডুবে যেত, জলজটে নগরবাসীকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হতো। কিন্তু, এবার রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিতেও নগরবাসীকে জলজট সমস্যায় ভুগতে হয়নি।

মেয়র আতিক বলেন, ‘মাস্ক আমার, সুরক্ষা সবার’—কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধে আমাদের প্রত্যেককেই সঠিকভাবে মাস্ক পরিধানসহ সরকারি নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধিসমূহ যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে।