সাধারণ জিজ্ঞাসা: (০৯) স্বামীর সব নির্দেশ মানা কি স্ত্রীর জন্য ওয়াজিব? 

প্রকাশিত: ১০:৪৬ অপরাহ্ণ, জুন ২১, ২০২০

উত্তর. একটি সুষ্ঠু পারিবারিক ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলতে পরিবারে একজনের কর্তৃত্ব থাকতে হয়৷ শরীয়তের নির্দেশনা অনুযায়ী মুসলিম পরিবারে এই কর্তৃত্বটুকু স্বামীর৷ কিন্তু এর অর্থ এই না যে, স্বামী স্ত্রীকে যা তা নির্দেশ করে যাবে আর স্ত্রীকে অন্ধভাবে সব মেনে নিতে হবে।

সাধারণভাবে যৌক্তিক যত নির্দেশ আছে সেগুলো মানা স্ত্রীর জন্য আবশ্যক৷ বিশেষ করে স্বামী যদি তার জৈবিক চাহিদা স্ত্রীর কাছে পেশ করে সেটা মানা স্ত্রীর জন্য জরুরী। কারণ হাদীসের ভাষ্য অনুযায়ী, যুক্তিসংগত কোনো কারণ ছাড়া স্ত্রী যদি স্বামীর জৈবিক চাহিদা পূরণ করতে অস্বীকার করে তাহলে ফেরেশতারা ঐ মহিলার উপর লা’নত বর্ষন করতে থাকে।

এছাড়া অন্য পারিবারিক বিষয়াদি যেগুলোতে কল্যাণ-অকল্যাণের ব্যাপার আছে, সেসব ক্ষেত্রেও স্ত্রীকে স্বামীর নির্দেশ মানতে হবে। তবে কুরআন ও হাদীসে নিষেধ আছে এমন কোনো বিষয়ে স্বামীর নির্দেশ মানা স্ত্রীর জন্য জরুরী না৷ কারণ নবী করীম বলেছেন, “لا طاعة لمخلوق فی معصیة “الخالق “স্রষ্টার অবাধ্য হয়ে সৃষ্টির অনুগত হওয়া যাবে না”।

স্বামীর কোনো নির্দেশ মানতে যদি স্ত্রী অক্ষম হন, অপারগ হন সে ক্ষেত্রেও স্ত্রীর জন্য স্বামীর নির্দেশ মানা জরুরী না। কারণ আল্লাহ নিজেই কোনো বান্দার উপর এমন কাজ চাপিয়ে দেন না, যা করতে সে অপারগ। আল্লাহ তা’য়ালা বলেন لا یکلف الله نفسا إلا وسعھا৷ সুতরাং, স্বামীর এ অধিকার নেই যে সে তার স্ত্রীকে এমন কাজে বাধ্য করবে, যা করতে সে অপারগ। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে বুঝার তাওফিক দান করুক, আমীন।

উত্তর প্রদান করেছেন শায়খ আহমাদুল্লাহ