সরকারি নির্দেশ মানলে সংক্রমণ আরও কম হতো: হানিফ

প্রকাশিত: ১২:০১ পূর্বাহ্ণ, জুন ১০, ২০২০
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে সরকার ও চিকিৎসকদের নির্দেশ মেনে চললে সংক্রমণ আরও কম হতো বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপকমিটির আয়োজনে কোভিড-১৯ বিষয়ক স্বেচ্ছাসেবী প্রশিক্ষণ কর্মশালার ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন হানিফ।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিশ্বের মানুষের কাছে চ্যালেঞ্জ হচ্ছে এই ভাইরাস থেকে কিভাবে মানুষ মুক্তি পাবে। উন্নত বিশ্বের মতো আমরাও বড় একটি দুর্যোগের মধ্যে দিয়ে অতিবাহিত করছি। এরমধ্যে সরকারপ্রধান শেখ হাসিনার সরকার অনেকগুলো পদক্ষেপ শুরু থেকে পদক্ষেপ নিয়েছে।’

দিন দিন সংক্রমণ বাড়ছে, তবে সরকার ও চিকিৎসকদের নির্দেশ মেনে চললে এতো সংক্রমণ হতো না বলেও মন্তব্য করেন হানিফ। তিনি আরো বলেন, ‘মানুষের খাদ্য ও চিকিৎসায় যেন কোনো ঘাটতি না থাকে সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতি মুহূর্ত মনিটরিং করছেন। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছেন যাতে দুর্যোগকে মোকাবিলা করতে পারি। মানুষ যাতে খাদ্য ও চিকিৎসায় কষ্ট না পায় সেজন্য সার্বক্ষণিক নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন।’

‘এর পাশপাশি প্রধানমন্ত্রী জীবন ও জীবিকার কথা মাথায় রেখে অনেক সাহসী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আজকে গার্মেন্ট কারখানাগুলো চালু হওয়ার পর অনেকেই চিন্তা করেছেন এতে হয়তো সংক্রমণ আরো বাড়বে। কিন্তু আমরা মনে করি, অনেক প্রজ্ঞা ও দূরদর্শী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’

নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দিলে সংক্রমণ হওয়ার সুযোগ নেই জানিয়ে হানিফ বলেন, ‘আমরা যদি সেইফটিকে অগ্রাধিকার দেই তাহলে সংক্রমণ হওয়ার সুযোগ নেই। এটি কঠিন কাজ নয়। মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবহার করা। এবং নাকে-মুখে যতটো সম্ভব হাত না দেওয়া, হাত ধোয়া এবং সামাজিক দুরত্ব যদি রাখতে পারি তাহলে আমরা করোনার এই ট্রান্সমিশন বন্ধ রাখতে পারি।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক হোসেন মনসুর। অনুষ্ঠানটি আওয়ামী লীগের ফেইসবুক পেইজ থেকে থেকে ইন্টারনেটে সম্প্রচার করা হয়।