শেখ হাসিনা সরকার ভিআইপি কালচারে বিশ্বাসী নয়: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত: ৫:০২ অপরাহ্ণ, জুন ২৮, ২০২০
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

নভেল করোনাভাইরাসের সংকটকালে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া নিয়ে ধনী-গরিবের ব্যবধান করলে গরিব মানুষ যাবে কোথায়, এমন প্রশ্ন রেখে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন- ‘শেখ হাসিনা সরকার ধনী-গরিব, বিত্তবান-বিত্তহীন, ভিআইপি-নন ভিআইপি চর্চাকে সমর্থন করে না।’ আজ রোববার দুপুরে সংসদ ভবন এলাকায় নিজের সরকারি বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন কাদের।

রোগীর প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন- ‘করোনাভাইরাস এমন এক সংক্রমণ, যা কাছের মানুষকেও দূরে ঠেলে দেয়। মুহূর্তেই আপন মানুষ হয়ে যায় অচেনা, সন্তান মা-বাবাকে হাসপাতালে রেখে চলে যাচ্ছে, স্বামী স্ত্রীকে পথের পাশে রেখে চলে যাচ্ছে। আবার মৃত্যুর পর কেউ কাছে আসছে না, দাফন কাফনের দায়িত্ব নিচ্ছে পুলিশ। পুরোটা জীবন প্রিয়জনের জন্য করে শেষ বিদায় নিচ্ছেন প্রিয়জনদের স্পর্শহীনতায়। এমন দৃশ্য প্রতিনিয়ত আমরা গণমাধ্যমে দেখছি। কিন্তু জনস্বাস্থ্য বিশেজ্ঞরা বলেছেন, মৃত্যুর তিন ঘণ্টা পর মৃতদেহ থেকে সংক্রমণ ছাড়ানোর সুযোগ নেই। তাই বলবো, এ রোগ কোনো অভিশাপ নয়, নিজেকে সুরক্ষিত করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন মেনে দাফন-কাফন কিংবা সৎকারে অংশ নিতে পারে আপনজনরা। রোগীর প্রতি সহানুভূতিশীল হোন, নিজেকে সুরক্ষিত রাখুন।’

রোগীদের মধ্যে ব্যবধান তৈরি না করার জন্য চিকিৎসকদের পরামর্শ দিয়ে সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন- ‘অনেকে অভিযোগ করেছেন, সমাজের উচ্চশ্রেণি তথা ভিআইপিরা হাসপাতালে সেবা পাচ্ছে, তাদের প্রতি মনোযোগ বেশি।

তাহলে আমি প্রশ্ন রাখতে চাই, সাধারণ মানুষ যাবে কোথায়? সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা বিষয়ক সবাইকে অনুরোধ করবো, বাছ-বিচার নয়, ধনী-গরিব নয়, বিত্তবান-বিত্তহীন নয়, ভিআইপি- নন-ভিআইপি নয়, সব রোগী সমান। আপনারা রোগীকে রোগী হিসেবে দেখবেন, কোনো ব্যবধান তৈরি করবেন না। শেখ হাসিনা সরকার তথাকথিত ভিআইপি কালচারে বিশ্বাসী নয়। সরকার এ সংকটে এমন চর্চাকে নিরুৎসাহিত করে।’

টেস্ট বাড়াতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন- ‘বর্তমানে ৬৬টি ল্যাবে টেস্ট করানো হচ্ছে। এ সুবিধা সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গবেষণা প্রতিষ্ঠান, ওষুধ কোম্পানিসহ ল্যাব সুবিধা আছে এমন প্রতিষ্ঠান, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ও ব্যবসায়ীদের জনস্বার্থে পিসিআর ল্যাব স্থাপনে উদ্যোগের আহ্বান জানাচ্ছি।’

বন্যাকবলিত মানুষের পাশে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের এগিয়ে আসার আহ্বানও জানান দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বলেন- ‘করোনাভাইরাসের সংকটের এ সময় দেশের কয়েকটি জেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। আমি এ কঠিন সময়ে বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’