রাজ্জাক সাকিবের দীর্ঘ সার্ভিসের কথা চিন্তা করেই অবসর নিয়েছিলাম- মোহাম্মদ রফিক

প্রকাশিত: ২:০১ পূর্বাহ্ণ, জুন ১, ২০২০

ক্রিকেটের পথ চলায় বাংলাদেশ অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় পেয়েছে, কিছু পেয়ে হারিয়েছে আবার কিছু কিছু প্রতিভাবান খেলোয়াড় এর ক্যারিয়ার দীর্ঘ হয় নি বলে  ক্রিকেটপ্রেমীদের একটা আক্ষেপের সুর দিন শেষে থেকেই যায়৷ ঠিক তেমনি একজন ছিলন মোহাম্মদ রফিক! ব্যাট কিংবা বল হাতে মেইড ইন জিঞ্জিরা বাংলাদেশে একজনি ছিলো, তিনি মোহাম্মদ রফিক!

১৯৯৫ সালে ওয়ানডে অভিষেক হলেও, টেস্টের কুলীন জগতে রফিকের পা বাংলাদেশের টেস্ট যাত্রার শুরুর দিকেই! বাংলাদেশের হয়ে সর্বপ্রথম টেস্টে ১০০ উইকেট নেওয়া এই বোলার নিজের ক্যারিয়ার দীর্ঘ করতে পেরেছেন প্রায় ১ যুগ! তবে চাইলেই হয়তোবা আরো কয়েকটা বছর নিজের ফিটনেসের সাথে তাল মিলিয়ে জাতীয় দলে খেলে যেতে পারতেন।

সম্প্রতি বিডিক্রিকটাইমের লাইভ আড্ডায় মোহাম্মদ রফিক জানিয়েছেন কেনো তার ক্যারিয়ার দীর্ঘ হয়নি। এব্যাপারে রফিক বলেন,

আমার বিদায়টা ভালোভাবে হয়নি। নির্বাচকরা আমাকে বলতো অবসর নিতে। অনুশীলনে গেলে বলতো তুমি অবসর নাও। তোমার জন্য আমরা দল ঠিক করতে পারছি না। আমি বলতাম দেখো, আমি তো পারফর্ম করেই দলে আছি। তারপরেও খুব বিরক্ত করতো। তখন আমি চিন্তা করলাম যে মানুষের কথা না শুনে আমি নিজেই অবসর নিয়ে নিই। তখনই অবসর নিয়ে নিলাম।

এ ব্যাপারে তিনি আরো জানান বোর্ডের সাথে বিরোধের জন্যে আমি অবসর নেইনি! আমি অবসর নিয়েছি তরুণ সাকিব এবং রাজ্জাকদের সুযোগ করে দেওয়ার জন্যে!

রফিক বলেন, ‘আসলে বিরোধ কিছু না। দেখা যায় আমার জায়গায় আমার সাকিব ভালো খেলছে, আব্দুর রাজ্জাক বসে থাকছে কিংবা কখনো সাকিব বসে থাকছে আর আমি নিয়মিত খেলছি। ওই জায়গাটা চিন্তা করে দেখলাম, সাকিব কিংবা আব্দুর রাজ্জাক যদি আমার থেকে দুই বছর বেশি খেলতে পারে ওই চিন্তাটা করেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিলাম। ওরা কিন্তু দীর্ঘ সময় খেলছে। আমি যদি খেলতাম দেখা যেত এখান থেকে যেকোন একজন বাদ পড়তো।’

মোহাম্মদ রফিক খেলোয়াড় হিসেবে যেমন বিশ্বের দরবারে  বাংলাদেশকে পরিচয় করিয়ে দিতে একটুও কার্পণ্য করেননি তার পুরো ক্যারিয়ার জুড়ে, ঠিক তেমনি দেশের এবং জুনিয়রদের ভালো চিন্তায় তিনি নিজ থেকেই সরে গিয়েছিলেন জাতীয় দলের লাইম লাইট থেকে! যার সুফল আমরা সাকিব-রাজ্জকের বোলিং থেকে পেয়েছি বিগত বছর সমূহে! ক্রিকেট থেকে প্রাপ্ত সম্মান না পেলেও আপনি আমাদের ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে সবসময় থাকবেন!

ধন্যবাদ আপনাকে, শুভকামনা রইলো আপনার  জন্যে!