মুজিববর্ষ আয়োজনে আইডিইএ থেকে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ

প্রকাশিত: ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৩০, ২০২০

মুজিববর্ষ আয়োজনে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের অধীনে ‘উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (iDEA)’ থেকে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। 

 

যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট’ আয়োজন। ‘বিগ’ আয়োজনের মাধ্যমে তরুণ উদ্যোক্তা অর্থাৎ স্টার্টআপদের নতুন উদ্ভাবনী ধারণাকে উৎসাহিত করে দেশে স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গড়ে তোলা এবং এই আয়োজনটিকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে একটি ফ্ল্যাগশিপ প্রোগ্রাম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে ২০২০-২১ সালে ৩টি আয়োজন যথাক্রমে বিশ্ববিদ্যালয় ও স্টেকহোল্ডার অ্যাক্টিভেশন ক্যাম্পেইন, টিভি রিয়েলিটি শো এবং আন্তর্জাতিক রোড শো সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

উল্লেখ্য, যে ‘বিগ’ এর আন্তর্জাতিক রোড শো এর মাধ্যমে প্রাপ্ত স্টার্টআপদের মধ্য থেকে একটি দক্ষ ও অভিজ্ঞ বিচারক প্যানেলের মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে। আমেরিকা, কম্বোডিয়া, ভারত, দক্ষিন কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, তুরস্ক, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ, চায়না, হংকং, জাপান, ইটালি-সহ বিভিন্ন দেশকে এই ‘আন্তর্জাতিক রোড শো’ এর মাধ্যমে অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এ আয়োজনগুলো থেকে নির্বাচিত সেরা ৩৬ টি স্টার্টআপকে ১০ লাখ টাকা করে ‘গ্র্র্যান্ট’ এর অর্থ প্রদান করার পাশাপাশি ‘বিগ’ ফাইনাল রাউন্ডের জন্য মনোনয়ন দেওয়া হবে ।

পরবর্তীতে, এই চূড়ান্ত পর্ব থেকে দেশি-বিদেশি অভিজ্ঞ বিচারকদের সমন্বয়ে গঠিত সিলেকশন প্যানেলের মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে মুজিববর্ষের বৃহৎ আয়োজনের চূড়ান্ত ফলাফল। ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট ২০২০ (বিগ)’ এর পুরস্কার হিসেবে সেরা একটি স্টার্টআপকে দেওয়া হবে বিশেষ সম্মাননা এবং গ্র্যান্ট হিসেবে ১ লাখ ইউএস ডলার।

বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট ২০২০ (বিগ) এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং সংবাদ সম্মেলন ২৫ নভেম্বর ২০২০ বুধবার ঢাকার আগারগাঁও আইসিটি টাওয়ারের বিসিসি অডিটরিয়ামে যথাযথ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত হয়। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক ‘বিগ’ এর শুভ উদ্বোধন করেন।

উক্ত আয়োজনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এর নির্বাহী পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) জনাব পার্থপ্রতিম দেব, iDEA প্রকল্পের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ মজিবুল হক। এছাড়া করোনা পরিস্থিতির কারণে আইসিটি পরিবারের আরো অনেকে অনলাইনে সংযুক্ত হন।

সংবাদ সম্মেলন ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক, এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু তার দূরদর্শীতা দিয়ে সময়ের আগে ভেবেছেন, সমস্যা সমাধানসহ অধিকার আদায়ের জন্য বড় বড় পদক্ষেপ নিয়েছেন ও অনেক বড় বড় উদ্যোগও গ্রহণ করেছেন।

তিনি আরো বলেন- ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট’- এই আইডিয়াটি নিয়ে কাজ শুরু করা হয়েছিল মুলত মুজিব বর্ষকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য। বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ, বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন এবং বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন যা আমাদের বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য অনুকরণীয় এবং অনুপ্রেরণাদায়ী একটি দৃষ্টান্ত। যদি আমাদের তরুণদেরকে আমরা উৎসাহিত এবং অনুপ্রাণিত করতে চাই তবে বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ এবং তার যে রাজনৈতিক দর্শন এবং তার যেই সংগ্রামের ইতিহাস, সেটা যদি প্রকৃতপক্ষে আমাদের বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে পারি তাহলে কিন্তু তারা কখনোই জীবন সংগ্রামে পরাজিত হবে না। সেই উদ্দেশ্য নিয়েই আমাদের এই উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবকদের-কে অনুপ্রাণিত করার জন্যই আমরা এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করছি।’

আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব জনাব এন এম জিয়াউল আলম পিএএ বিশেষ অতিথি হিসেবে বলেন, আমরা সকলেই বঙ্গবন্ধুর বিশালতার কথা জানি। এই ‘বিগ’ এর মাধ্যমে আমরা বড় বড় কাজ করতে পারব এটা আমাদের প্রত্যাশা। তিনি তরুণদের উৎসাহিত করে বলেন যে তরুনরা চাইলেই তাদের উদ্ভাবনকে কাজে লাগিয়ে বড় প্রতিষ্ঠান গড়তে পারেন এবং হতে পারেন ‘বিগ’।

অনুষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এর নির্বাহী পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) জনাব পার্থপ্রতিম দেব স্টার্টআপের উদ্ভাবিত তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর উদ্ভাবনী পণ্যের বিশ্ববাজারে পরিচিতির লক্ষ্যে, বিশেষ করে আন্তর্জাতিক বাজারে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ পণ্যের প্রচার-প্রসারের কৌশল হিসেবে উন্নত বিশ্বের স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমের সাথে বাংলাদেশের স্টার্টআপদেরকে পরিচিত করে দেয়ার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে জানান। বাংলাদেশের স্টার্টআপ সংস্কৃতি বিকাশের উদ্দেশ্যে প্রকল্প হতে ‘বিগ’ আয়োজন একটি বিশাল ভূমিকা রাখবে বলেও তিনি আশাব্যাক্ত করেন।

অনুষ্ঠানটিতে iDEA প্রকল্পের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ মজিবুল হক বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং নানা স্মৃতি তুলে ধরেন। এছাড়াও তিনি iDEA প্রকল্পের বিভিন্ন কার্যক্রম ও সফলতা সম্পর্কে বর্ননা করেন। দেশীয় উদ্ভাবক ও উদ্যোক্তাগণকে নিজেদের মেধা ও সৃজনশীলতার সমন্বয়ে বিভিন্ন উদ্ভাবনের মাধ্যমে বাস্তব জীবনের নানা সমস্যা সমাধানে উৎসাহিত করতে “বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট ২০২০” আয়োজনের গুরুত্ব তিনি সকলের মাঝে তুলে ধরেন এবং ‘বিগ’ এর সাথে সংযুক্ত হবার জন্য সকল পার্টনারদেরও আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।