বুস্টার ডোজসহ চীনা টিকা গ্রহণকারীদের জন্য সুখবর

ভ্রমণকারীদের জন্য নতুন নির্দেশনা দিল সৌদি আরব

প্রকাশিত: ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২১
সৌদি আরবের জাতীয় পতাকা। ছবি : সংগৃহীত

চীনের সম্পূর্ণ ভ্যাকসিন দেয়া বিদেশি ভ্রমণকারীদের তাদের দেশে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সউদী আরব, যদি তারা দেশটির অনুমোদিত অপর চারটি ভ্যাকসিনের মধ্যে কোন একটির বুস্টার ডোজ গ্রহণ করে থাকে। দেশটির ই-ভিসা ওয়েব পোর্টাল সূত্রে একথা জানা গেছে।

পোর্টালে ভ্রমণকারীদের জন্য নির্দেশিকাগুলোর মধ্যে একটিতে বলা হয়েছে, ‘অতিথি যারা সিনোফার্ম বা সিনোভ্যাক ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ সম্পন্ন করেছেন তারা যদি সউদী আরবের অনুমোদিত চারটি ভ্যাকসিনের একটির অতিরিক্ত ডোজ পেয়ে থাকেন তবে তাদের গ্রহণ করা হবে’।

সিদ্ধান্তটি অনুসরণ করে দেশটি গত ১ আগস্ট আন্তর্জাতিক ভিজিটরদের জন্য তার দরজা খুলে দিয়েছে। তবে শর্ত থাকে যে, তাদের ফাইজার, অ্যাস্ট্রাজেনেকা, মডার্না বা জনসন অ্যান্ড জনসন ভ্যাকসিন গ্রহিতা হতে হবে।

পোর্টালের একটি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ‘বৈধ পর্যটন ভিসা নিয়ে দেশে আগত সকল দর্শনার্থীদের অবশ্যই বর্তমানে স্বীকৃত চারটি ভ্যাকসিনের একটি সম্পূর্ণ কোর্সের প্রমাণ প্রদান করতে হবে। এগুলোর মাত্রা হচ্ছে অক্সফোর্ড/অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার/বায়োটেক বা মডার্না ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ অথবা জনসন এবং জনসন উৎপাদিত ভ্যাকসিনের এক মাত্রা।

সউদী আরব গত সপ্তাহে ঘোষণা করেছিল যে, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ১৭ মাস বন্ধ থাকার পর সম্পূর্ণ টিকা দেওয়া বিদেশী পর্যটকদের জন্য তার সীমানা পুনরায় চালু করছে।

সউদী প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, পর্যটন মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছে যে, দেশটি বিদেশি পর্যটকদের জন্য তার দরজা খুলে দেবে এবং ১ আগস্ট থেকে পর্যটক ভিসাধারীদের প্রবেশের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করবে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছিল যে, সউদী অনুমোদিত জ্যাবের সাথে সম্পূর্ণভাবে ভ্যাকসিন করা ভ্রমণকারীরা ‘প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সময়ের প্রয়োজন ছাড়াই’ দেশটিতে প্রবেশ করতে পারবে, যদি তাদের কাছে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর টেস্টে কোভিড-১৯ নেগেটিভ রিপোর্ট হয় এবং স্বাস্থ্য বিভাগে নথিভুক্ত করা হয়।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, রিয়াদ তার তেল নির্ভর অর্থনীতিতে বৈচিত্র্য আনার প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে শুরু থেকেই পর্যটন শিল্প গড়ে তোলার লক্ষ্যে কোটি কোটি টাকা ব্যয় করেছে। দেশটি দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করার উচ্চাভিলাষী পদক্ষেপের অংশ হিসাবে ২০১৯ সালে প্রথমবারের মতো পর্যটক ভিসা প্রদান শুরু করে।

সূত্র : ডন অনলাইন।