বাজেট অধিবেশন ক্যালেন্ডারে পরিবর্তন

প্রকাশিত: ৯:৩৬ অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০২০

চলতি বাজেট অধিবেশনের কার্যদিবসে আরও কাটছাঁট করে বাজেট অধিবেশন ক্যালেন্ডারে পরিবর্তন আনা হয়েছে। অধিবেশনের কার্যদিবস পূর্বপরিকল্পিত ১২ দিনের পরিবর্তে ৮/৯ দিন চলতে পারে। এক্ষেত্রে বাজেটের ওপর আলোচনার দিন ও ঘণ্টা কমছে।

পরিবর্তিত পরিকল্পনা অনুযায়ী সাধারণ বাজেটের ওপর আলোচনা হবে মাত্র দুইদিন ২৩ ও ২৪ জুন। অবশ্য ২৯ জুন বাজেটে অর্থ বিল পাসের দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাজেটের সমাপনী আলোচনায় অংশ নেবেন। সংসদ সচিবালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘কমানো-বাড়ানোর কোনো সিদ্ধান্ত নয়। আমরা যে কয়দিন নির্ধারণ করবো সেই কয়দিন আলোচনা হবে।’

প্রসঙ্গত, অধিবেশন কতদিন চলবে তা প্রতি অধিবেশনের আগে অনুষ্ঠিত কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে এবার কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠক হয় নি।
কার্যউপদেষ্টা কমিটির প্রধান ড. স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী তার ক্ষমতা বলে কমিটির অন্যতম সদস্য সংসদ নেতা শেখ হাসিনাসহ গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করে বৈঠকের সার্বিক বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন।

এবার বাজেট অধিবেশন কতদিন চলবে সেটা আনুষ্ঠানিকভাবে জানাতে সংসদ সচিবালয় থেকে একটি ক্যালেন্ডার প্রকাশ করা হয়। ওই ক্যালেন্ডার অনুযায়ী অধিবেশন ১২ কার্যদিবস চলার কথা জানানো হয়।

ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ১০ জুন বুধবার বিকাল ৫টায় জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরুর পর শোক প্রস্তাব গ্রহণের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শেষ। পরের দিন ১১ জুন বাজেট পেশ ও অর্থ বিল উত্থাপন। এরপর ১২ ও ১৩ জুন বৈঠক মুলতবি রেখে ১৪ এবং ১৫ জুন সম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনা করে সম্পূরক বাজেট পাস করা হবে। পরদিন শুরু হবে প্রস্তাবিত সাধারণ বাজেটের ওপর আলোচনা।

১৬ ও ১৭ জুন দুইদিন আলোচনা শেষে ১৮ থেকে ২১ জুন পর্যন্ত অধিবেশন মুলতবি। এরপর ২২ থেকে ২৪ জুন আরও তিন দিন এ বাজেটের ওপর আলোচনা করে ২৫ থেকে ২৮ জুন চারদিনের বিরতি। ২৯ জুন সোমবার বাজেটের ওপর সমাপনী আলোচনা হওয়ার কথা।

এদিনই পাস হবে অর্থবিল। পরদিন ৩০ জুন মূল বাজেট ও নির্দিষ্টকরণ বিল পাস হবে। এরপর আরেকটি বিরতি দিয়ে ৮ বা ৯ জুলাই একদিনের জন্য অধিবেশন বসে সেদিন সমাপ্তি ঘোষণা।

কিন্তু পরিবর্তিত সিডিউল অনুযায়ী আজ সোমবার ১৫ জুন থেকে ২৩ জুন সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বৈঠক মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে। এ অনুযায়ী ২৩ ও ২৪ জুন বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।

তবে, পূর্বপরিকল্পিত ২৯ জুন বিরোধীদলীয় উপনেতা, সংসদ নেতা ও অর্থমন্ত্রীর বাজেট আলোচনা এবং অর্থবিল পাস আর ৩০ জুনের বাজেট পাসের সিদ্ধান্ত অপরিবর্তিত রয়েছে। অবশ্য জুলাই মাসের ৮/৯ তারিখে অধিবেশন করার যে পরিকল্পনা রয়েছে সেই বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত আসে নি।

এদিকে পরিকল্পনা অনুযায়ী সম্পূরক ও সাধারণ বাজেটের ওপর ২০ থেকে ২২ ঘণ্টার মতো আলোচনার সিদ্ধান্ত হলেও তা অর্ধেক কমিয়ে ১০ থেকে ১১ ঘণ্টায় সীমিত করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, ‘আমরা সবকিছু করছি করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়টি চিন্তা করে। অধিবেশন কতদিন চলবে তার সিদ্ধান্ত নেবেন স্পিকার। সংক্রমণ পরিস্থিতির বিবেচনায় তিনি হয়ত কার্যদিবস যতদূর সম্ভব কমিয়ে আনছেন।’