বাংলাদেশকে ৩১শ’ কোটি টাকা সহায়তা দেবে ইইউ

প্রকাশিত: ১২:৫১ পূর্বাহ্ণ, জুন ৩, ২০২০

করোনা মোকাবেলা

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ৩ হাজার ১০০ কোটি টাকা (২৭ কোটি ইউরো) সহায়তা দেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এই সহায়তা খাদ্য নিরাপত্তা, বেসরকারি খাত উন্নয়নসহ অন্যান্য সহযোগিতায় বাড়তি হিসাবে দেয়া হচ্ছে।

গত ২০ মে ইউরোপীয় ইউনিয়ন দূতাবাস থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়। ইইউ সদস্য রাষ্ট্রগুলো এবং ইউরোপীয় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি একযোগে ‘টিম ইউরোপ’ গঠন করেছে। সারাবিশ্বের জন্য কোভিড-১৯ প্রতিরোধে তারা ২ হাজার কোটি ইউরো বরাদ্দ করেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘টিম ইউরোপ’ করোনাভাইরাসের জন্য প্রায় ৩৪ কোটি ইউরো বাংলাদেশের জন্য বরাদ্দ করেছে। ভবিষ্যতে আরও তহবিল জোগাড় করা হতে পারে। এই তহবিলের মধ্যে প্রায় ২৭ কোটি ইউরো অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষয়ক্ষতি কমানোর জন্য ব্যবহার করা হবে। এই ২৭ কোটি ইউরোর মধ্যে নয় কোটি ইউরো রফতানি খাতের শ্রমিকদের নগদ সহায়তার জন্য অনুদান দিচ্ছে ইইউ। দুই কোটি ইউরো অনুদান দিচ্ছে জার্মানি। এছাড়া সামাজিক সুরক্ষা পদক্ষেপের জন্য ১৫ কোটি ইউরো সহায়তা দেবে ফ্রান্স।

রোহিঙ্গা ও কক্সবাজারের স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জন্য সাড়ে ৬ কোটি ইউরো সহায়তা দেয়া হবে এবং এরমধ্যে প্রায় ১ কোটি ৭০ লাখ ইউরো দেবে ইইউ এবং ৪ কোট ৮০ লাখ ইউরো দেবে জার্মানি। এছাড়া স্বাস্থ্য খাতের জন্য ৫৫ লাখ ইউরো সহায়তা দেয়া হবে এই বরাদ্দের অধীনে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ৬ লাখ ১৮ হাজার ৩৮৩ এবং জার্মানির ৬৯ হাজার ইউরো অনুদানে ঢাকা শহর এবং গ্রামাঞ্চলের অতি-দরিদ্র ও দুর্বল মানুষের জরুরি প্রয়োজনের সমাধান করা হবে। এই অবদানটি সংক্রামিত পরিবারগুলোতে সরাসরি নগদ স্থানান্তর এবং ভাইরাসের বিস্তার কমাতে সচেতনতা প্রচারে সহায়তা করবে।

বৈশ্বিক স্তরে, কোভিড-২০১৯ মোকাবিলায় ৮৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ২২ শতাংশ অবদান রেখে ‘টিম ইউরোপ’সহ অন্যান্য বহুপক্ষীয় অংশীদার এবং আইএফআই (ওয়ার্ড ব্যাংক, আইএমএফ, এডিবি)-এর সাথে যোগ দিয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং এর সদস্য দেশগুলো মহামারী মোকাবেলার জন্য বহুপাক্ষিক অংশীদারদের যে তহবিল সরবরাহ করেছে তার থেকেও বাংলাদেশ উপকৃত হবে।

কোভিড-১৯ কোনও সীমানা জানে না এবং সবচেয়ে দুর্বলতমকে আঘাত করে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজে তেরিঙ্ক বলেছেন, ইউরোপের ৩৩৪ মিলিয়ন ইউরোর সহযোগিতা যারা স্বাস্থ্য ও জীবন-যাপনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তাদের সহায়তা প্রদানে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করবে।

‘টিম ইউরোপ’ বিশ্বাস করে যে, সব বাংলাদেশী এবং বিশেষত সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ মানুষ এই পদক্ষেপ থেকে উপকৃত হবেন। ‘টিম ইউরোপ’ হলো কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দেয়ার এবং আমাদের বিশ্বব্যাপী সংহতি প্রকাশের ব্যতিক্রমী ইউরোপীয় প্রচেষ্টার স্পষ্ট প্রকাশ।

সূত্র কৃতজ্ঞতা- ইনকিলাব