বউ কাঁধে নিয়ে দৌড় প্রতিযোগিতা

আমজাদ হোসাইন

প্রকাশিত: ৫:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০২১

বিনোদনের একটি অন্যতম মাধ্যম খেলাধুলা। আর এ খেলাধুলাকে আরো বেশি আকর্ষণীয় করার জন্য বিশ্বজুড়ে আয়োজন করা হয় নানান ব্যতিক্রমী প্রতিযোগিতার, যার মধ্যে অন্যতম একটি হলো দৌড়। প্রতিবছর ফিনল্যান্ডে আয়োজিত হয় তেমনই একটি ব্যতিক্রমী দৌড় প্রতিযোগিতা। তবে এটা কোন সাধারণ দৌড় প্রতিযোগিতা নয়, বরং Wife Carrying Competition বা ‘বউ-কাঁধে দৌড় প্রতিযোগিতা’। এখানে শক্তির পাশাপাশি পরীক্ষা দিতে হয় মিলবন্ধন ও ভালোবাসার। কারণ এ প্রতিযোগিতায় নিজের অর্ধাঙ্গিকে কাঁধে তুলে দৌড়াতে হবে। শুধু তাই নয়, এ অবস্থাতেই অতিক্রম করতে হবে পথের মাঝে ফেলে রাখা গাছের গুড়ি আর পানিতে পূর্ণ, খালের বাধা। মাঝে মাঝে থাকে কাদা আর বালি দিয়ে তৈরি কৃত্রিম বাধা- যাতে বউ কাঁধ থেকে ছিটকে পড়ে। এসব বাধা পেরিয়ে যে দম্পতি সবার আগে ২৫৩.৫ মিটার পথ অতিক্রম করতে পারবে, তারাই হবে সেরা জুটি।

এ প্রতিযোগিতা শুরুর ইতিহাস কিন্তু একেবারেই অন্যরকম। ফিনল্যান্ডে একটি কিংবদন্তী আছে যে, ঊনবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে ‘রসভো রনকাইনেন’ নামের এক গুণ্ডা বাস করতো সনকাজারভিতে। তার কাজ ছিলো নারীদের চুরি করে ফিনল্যান্ডের মধ্যদিয়ে পালিয়ে যাওয়া। রসভো রনকাইনেন বিশেষ করে গ্রামের নারীদের চুরি করতো, এবং সে পালিয়ে যওয়ার সময় চুরিকৃত নারীকে কাঁধে নিয়ে দৌড়ে পালাতো। আর ১৯৯২ সাল থেকে এটাই একটি প্রতিযোগিতা হিসেবে দেশটির ঐতিহ্য বহন করছে। অদ্ভুত এ প্রতিযোগিতায় পুরুষ হিসেবে আপনার বাহাদুরি দেখানোর ভালো সুযোগ আছে, তবে জীবনসঙ্গী যদি হয় বেশি স্বাস্থ্যবান তাহলে কিন্তু খবর আছে! বউ কাঁধে নিয়ে দৌড়ানোর ক্ষমতা আছে তো আপনার? তাহলে চলে যান ফিনল্যান্ডে এবং অংশগ্রহণ করুন ‘ওয়াইফ ক্যারিং কম্পিটিশনে।

সম্প্রতি ফিনল্যান্ডে হয়ে গেলো ব্যতিক্রমী এ প্রতিযোগিতার ২০তম আসর। ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতা রক্ষায় এবারও ফিনল্যান্ডের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সোনকাজারভি’তে আয়োজন করা হয় ব্যতিক্রমী এই ‘বউ-কাঁধে দৌড় প্রতিযোগিতা’। প্রতিবছরের মতো এবছরও বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অনেক দম্পতি এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে সোনকাজারভি শহরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে হাজির হয়েছিলেন। তবে, দু’দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতায় ১৪টি দেশ থেকে অংশ নেয়া ৬০ জোড়া দম্পতির মধ্য থেকে এবারও শিরোপা জিতেছেন গত বছরের চ্যাম্পিয়ন দম্পতি। তারা বলেন- দ্বিতীয়বারের মতো এ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হতে পেরে আমরা খুবই খুশি । এই খেলাটি সত্যিই বেশ আনন্দদায়ক এবং মজাদার।

আয়োজকদের কয়েকজন বলেন- “অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর আমরা রেকর্ড পরিমাণ প্রতিযোগী পেয়েছি। বিনোদনের জন্য আয়োজিত মজাদার এ প্রতিযোগিতায় এবার বেশ হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। ছুটির দিনে এ খেলাটি উপভোগ করতে প্রায় আট হাজার দর্শকের সমাগম হয়েছে।” এবারের আয়োজনে বাড়তি আনন্দ যোগ করতে, প্রথম পুরুষ জোড়া হিসেবে জার্মান কমেডিয়ান জারেড হাসেলহফ ও বুলেন্ট সেইলান প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। মূল দৌড় প্রতিযোগিতাটি গত বছরের মতো রৌদ্রোজ্জ্বল দিনের পরিবর্তে বৃষ্টিস্নাত দিনে হলেও, মজার এ প্রতিযোগিতাকে ঘিরে উৎসুক দর্শকের ভিড় কমেনি একটুও। শুধু তাই নয় পৃথিবীজুড়ে প্রায় ৫শ’ মিলিয়ন দর্শক অনলাইনে প্রতিযোগিতাটি উপভোগ করেছে।

ঘাড়ে বউ নিয়ে দৌড় প্রতিযোগিতায় টানা দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন জেরোম-অলিভিয়া দম্পতি। প্রতিবছর মাইনে রাজ্যের অক্সফোর্ড কাউন্টির নিউরে শহরের স্কি রিসোর্টে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রতিযোগীদের মধ্যে কেউ কেউ পেশাদার অ্যাথলেট-জিমন্যাস্ট হলেও, অনেকে সাধারণ দম্পতিও নিজ নিজ ঐতিহ্য অনুযায়ী বর্ণিল পোশাকে নিজেদের সাজিয়ে নিছক আনন্দের জন্য প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। তবে আয়োজকদের মতে- এর উদ্দেশ্য শুধু শিরোপা জেতা নয়; বরং দীর্ঘ দিন একঘেয়ে হয়ে যাওয়া দাম্পত্য সম্পর্ককে নতুনভাবে ফিরে পাওয়ার এবং ভালোবাসার বন্ধনকে আরো দৃঢ় করার একটি সুযোগ এই প্রতিযোগিতা। এবারের প্রতিযোগিতায় জেরোম এবং অলিভিয়া সময় নিয়েছেন ৫৩ দশমিক ৮৫ সেকেন্ড। অলিভিয়ার ৫১ কেজি ওজনের পাঁচগুন বিয়ার জিতেছেন, যার দাম ৫৭০ ডলার। অলিভিয়া রোহম বলেন- আমাদের কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় হলো, আমরা আমাদের নিজস্ব রেকর্ডকে পরাজিত করেছি।

প্রতিযোগিতার রয়েছে বেশকিছু নিয়ম। নিয়মগুলো তৈরি করেছে আন্তর্জাতিক ওয়াইফ ক্যারিং কম্পিটিশন রুলস কমিটি। এই নিয়মগুলো পূর্ণ করা ব্যতীত কেউ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

#যে বউকে আপনি বহন করবেন সেটি হতে হবে আপনার।

#বউয়ের বয়স হতে হবে কমপক্ষে ১৭ বছর বা তার বেশি।

#বউয়ের ওজন হবে ন্যূনতম ৪৯ কেজি। যদি ওজন এর কম হয় তাহলে গায়ে এমন কিছু পরা থাকতে হবে যাতে ওজন ৪৯ কেজি হয়।

#দৌড়ানোর সময় বউ পড়ে গেলে ফের তাকে পিঠে বা কাঁদে তুলে তবেই দৌড় শুরু করতে হবে।

#যে জুটি সবচেয়ে কম সময়ে দৌড় শেষ করতে পারবে তারা জিতবে।

#এ দৌড়ের ট্র্যাক হবে বালুকাময়, যার দৈর্ঘ হবে ২৫৩.৫ মিটার।

#ট্র্যাকের মধ্যে দুটি শুষ্ক কাঠ বা গাছের গুড়ির প্রতিবন্ধকতা থাকবে।

#একটি পানির প্রতিবন্ধকতা (কৃত্তিম খাল) থাকবে যার গভীরতা হবে ১ মিটার।

#একটি হেলমেট ও একটি বেল্ট ছাড়া প্রতিযোগিরা আর কিছু ব্যবহার করতে পারবেন না।

#ট্র্যাকে তাদেরকে দৌড়াতে হবে দু’বার। নির্দিষ্ট স্থানে গিয়ে আবার ফিরে আসতে হবে।

#সবেচেয়ে বিনোদন দেওয়া জুটি, সবচেয়ে ভালো পোশাক পরা জুটি এবং সবচেয়ে শক্তিশালী জুটি পাবে বিশেষ পুরস্কার।

এছাড়াও রয়েছে একটি গ্রুপ কম্পিটিশন। এখানে তিনজন পুরুষ পালাক্রমে তাদের স্ত্রীদের বহন করবেন। যিনি তার স্ত্রীকে বহন করবেন তাকে প্রতিযোগিতার প্রতিটি পয়েন্টে এসে অবশ্যই অফিসিয়াল ‘ওয়াইফ ক্যারিং ড্রিংস’ পান করতে হবে। তারপর আবার দৌড় শুরু করতে হবে। যে দম্পতি সবচেয়ে কম সময়ে টার্গেটে পৌছাতে পারবেন, তারাই হবেন বিজয়ী। ইদানীং ফিনল্যান্ড ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, হংকং এবং এস্তোনিয়ায় এই ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিযোগিতার আয়োজন হয়।