প্রবাসীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনা জঘন্য অপরাধ: ডা. জাফরুল্লাহ

প্রকাশিত: ৬:৪৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০
গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। ফাইল ছবি

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়নের ভিত্তি গড়েছেন আমাদের প্রবাসীরা। তাদের সঙ্গে আমরা সম্প্রতি যে ব্যবহার করছি, তা উদ্বেগের। তাদের প্রতি পুলিশের লাঠিচার্জ জঘন্য অপরাধ। প্রবাসীদের প্রতি এমন ব্যবহারের পরিবর্তে সরকারের উচিত প্রত্যেকটা প্রবাসীকে সরকারি অর্থে হোটেলে রাখা এবং তারপর সরকারের দায়িত্ব হবে প্রবাসীদের ভিসা ও আকামার সমস্যার সমাধান করা।’

‘প্রবাসে বাংলাদেশি শ্রমিকদের কর্মস্থলে আকামা, ভিসা সমস্যা সমাধানে করণীয়’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় আজ মঙ্গলবার এ আহ্বান জানান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। রাজধানীর ধানমণ্ডিতে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের গেরিলা কমান্ডার মেজর এ টি এম হায়দার বীর উত্তম মিলনায়তনে এই সভা হয়।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর সঞ্চালনায় এ সময় আরো কথা বলেন চট্টগ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী জয়নাল আবেদিন বাকের।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ঘরে না থেকে সৌদি আরবে গিয়ে সৌদি বাদশাহর সঙ্গে দেখা করা উচিত প্রধানমন্ত্রীর। তাদের বুঝিয়ে বলা উচিত আমাদের সমস্যার কথাগুলো। প্রধানমন্ত্রী মুসলিম রাষ্ট্রের একমাত্র নারী নেত্রী। তাঁর একটা গুরুত্ব আছে। ফোনালাপে এই সমস্যার সমাধান হবে না। একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী সৌদি গেলে সমস্যাগুলো সমাধানের পাশাপাশি দূতাবাসে যে সমস্যাগুলো রয়েছে, সেগুলোও তিনি দেখে আসতে পারবেন।’

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরো বলেন, ‘দেড় কোটি প্রবাসী যদি দেশে ফিরে আসে তাহলে বাংলাদেশের অবস্থা খুব একটা ভালো হবে না। এমনিতেই অসংখ্য রোহিঙ্গা আমাদের দেশে অবস্থান করছেন। একই সঙ্গে প্রবাসীরা দেশে ফিরে এলে তাদের জমানো অর্থ ফুরিয়ে যাবে। তখন আরো একটা সংকটের সৃষ্টি হবে। আর বর্তমানে এমনিতেই ঢাকাতে হাঁটার জায়গা নেই, দেড় কোটি মানুষ অতিরিক্ত এলে এই অবস্থা আরো শোচনীয় হবে।’

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এই ট্রাস্টি বলেন, ‘সমস্যার সমাধানে মন্ত্রী বা সরকারি আমলাদের পাঠিয়ে কিছু হবে না। সরকারি কর্মকর্তারা বিদেশে গিয়ে লাটসাহেব হয়ে যান। তাই সমস্যার সমাধানের আশা করা যায় না। প্রধানমন্ত্রীকেই এ ব্যাপারে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। শেখ হাসিনা সেখানে গেলে সৌজন্যবোধ এবং তাঁর সম্মানে ও শিষ্টাচারে এই সমস্যাটার সমাধান হয়ে যাবে। একই সঙ্গে আমাদের প্রবাসীদের সম্মান দেখানো হবে।’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ভালো পরামর্শ গ্রহণ করা কঠিন। কেননা তাঁকে ঘিরে রয়েছে ভারত, ইসরায়েলসহ বিভিন্ন দেশের গোয়েন্দা এবং আমলারা। তবু উন্নয়নের স্বার্থে তাঁর এই পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। কেননা প্রবাসীরাই আমাদের সুন্দর জীবনযাপনের মূল চাবিকাঠি।’

করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘এখন যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ, এটা ভুল সিদ্ধান্ত। প্রয়োজনে দুই শিফটে ক্লাস পরিচালনা করা যেতে পারে। কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেওয়া উচিত।’

সভায় সৌদি আরব প্রবাসী জয়নাল আবেদীন বাকের প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কথা বলেন এবং সরকারের প্রতি এগুলো সমাধানে আহ্বান জানান।