পশুর হাটের ইজারা নিয়ে দোদুল্যমান ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন

প্রকাশিত: ৯:৫৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৫, ২০২০
প্রতীকী ছবি

রাজধানীর কুরবানির পশুর হাটের ইজারা নিয়ে এখনও দোদুল্যমান ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। উত্তর সিটি মাত্র তিনটি হাটের ইজারা চূড়ান্ত করলেও দক্ষিণে এখনও চূড়ান্ত হয় নি একটিও। করোনায় অর্থ সংকট ও স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা স্বীকার করছেন ইজারাদাররা। তারপরেও ইজারার জন্য দুই সিটি করপোরেশন ভবনেই ইজারাদারের দেখা মেলে প্রতিদিনই। স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে ইজারাপ্রথা বাতিল করে ভার্চুয়াল পশুর হাটের পরামর্শ নগরবিদদের।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়- সামনেই পবিত্র ঈদুল আজহা বা কুরবানির ঈদ। মাসের শুরুতেই পশুর হাটের ইজারা নির্ধারণ করার পরই শুরু হয় হাটের প্রস্তুতি। কিন্তু এবার মহামারী করোনার কারণে এখনও দুই সিটি চূড়ান্ত করতে পারে নি পশুর হাটের ইজারা। উত্তর সিটি করপোরেশনের ১২টি হাটের প্রস্তাবনা থাকলেও জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় পশুর হাট কমানোর কথা জানান মেয়র।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন- গতবারের চেয়ে এবারে আমাদের হাটের সংখ্যা কমবেই। যে জায়গাতে হাট করে আমরা বেশি ইনকাম করতাম সেখানে আমরা হাট করছি না।

উত্তর সিটির মোহাম্মদপুরের বসিলা, উত্তরার কাওলা ও খিলক্ষেতের ডুমনি এ তিনটি হাটের ইজারা দেয়া হয়েছে অনেকটা নামমাত্রে। করোনায় পাইকার, ফড়িয়া ও ক্রেতা নিয়ে অনেকটা সংশয়ে ইজারাদাররা।

তবে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ১৪টি হাটের মধ্যে চারটি পশুর হাটের সুপারিশ করলেও চূড়ান্ত হয় নি একটিও। অবশ্য করোনাকালে সংক্রমণ রোধে প্রথাগত হাটের বিকল্প ভাবনা নগরবিদদের।

ইতোমধ্যে উত্তর সিটির সবচেয়ে বড় পশুর হাট আফতাবনগর ও তেজগাঁও গরুর হাটের ইজারা বাতিল করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন।