নিরাপদ খাদ্য হিসেবে অনুমোদন পেল কালো গুবরেপোকার লার্ভা!

প্রকাশিত: ৭:১৪ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২১
ইউরোপীয় ইউনিয়ন

মানুষের খাদ্য হিসেবে কালো গুবরেপোকার লার্ভকে নিরাপদ বলে ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের খাদ্য নিরাপত্তা সংস্থা।

খাদ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, বেশ সুস্বাদু গুবরেপোকার শুককীট দিয়ে তৈরি খাবারগুলো। তবে সেটি সবার জন্য উপযুক্ত হবে এমনটা বলা যাবে না।

ফ্রান্সের প্রথম পোকামাকড় দিয়ে খাদ্যপ্রস্তুতকারী সংস্থা মাইক্রোনিউট্রিসের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সংস্থা সেটি অনুমোদনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন খাদ্য নিরাপত্তা সংস্থার।

আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ইউরোপজুড়ে বিভিন্ন সুপার শপের তাক এবং রান্নাঘরের শেলফে এই হলুদ শুককীট যাতে স্থান করে নিতে পারে সেদিকে নজর দিচ্ছে ইইউ সংস্থাটি।
মানুষের খাদ্য হিসেবে কোনও পোকা নিরাপদ কিনা সেটি যাচাইয়ের এটিই প্রথম ঘটনা। ফলে ইউরোপ জুড়ে এটি অনুমোদনের পথ প্রশস্ত হতে পারে বলে জানান খাদ্য নিরাপত্তা সংস্থার বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এরমোলাওস ভার্ভারিস।

বর্তমানে পোকামাকড়কে অন্যতম সম্ভাবনাময় খাদ্য উৎস হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে বিভিন্ন দেশে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন রেসিপি সরবরাহকারী বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানও দাড়িয়ে গেছে। তবে অনুমোদন না থাকায় তাদের উপস্থিতি টের পওয়া যায় না। অনেকে চিন্তা করছেন বাণিজ্যিকভাবে তা উৎপাদন ও সরাবরাহের।

এদিকে, পোকামাকড় দিয়ে তৈরি খাবার বিক্রি ইউরোপের অন্যান্য দেশের মধ্যে ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি এবং স্পেনে নিষিদ্ধ। তবে এমন খাবার বাজারে চালু করতে হলে অনুমোদন নিতে হবে ব্রাসেলসের নতুন খাদ্য কর্তৃপক্ষের।

অবশ্য এই লার্ভার মূল উপাদান আমিষ, চর্বি এবং ফাইবার। এটিকেই বিবেচনা করা হচ্ছে ভবিষ্যতে খাদ্যের টেকসই ও কম কার্বন-নিঃসরণকারী উৎস হিসেবে।

বিভিন্ন প্রজাতির পোকার শুককীট ভালোমতো শুকানো হলে খেতে চিনাবাদামের মতো সুস্বাদু মত খাদ্য বিশেষজ্ঞদের।

কালো গুবরেপোকার লার্ভা সংগ্রহের প্রক্রিয়া হলো:

১। প্রথমে প্রাপ্তবয়স্ক পোকা থেকে ডিম আলাদা করে লার্ভাগুলোকে বেড়ে উঠতে দেয়া হয়।
২। সেগুলো পানি দিয়ে ধুয়ে পাঁচ মিনিট ফুটন্ত পানিতে সিদ্ধ করা হয়।
৩। পরবর্তী ধাপগুলোর মধ্যে রয়েছে যথাক্রমে শুঁটকি করা, প্যাকেজিং এবং গুদামজাতকরণ।
৪। এই শুকনো লার্ভা গুঁড়ো করে আটার মতোও বিক্রি হয়।
সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান