দেশে বন্যা পরিস্থিতি: নেত্রকোণায় পঞ্চাশ গ্রাম প্লাবিত

প্রকাশিত: ৪:৪১ অপরাহ্ণ, জুন ২৮, ২০২০

কলমাকান্দায় দুই দিনের ভাড়ী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। বন্যায় উপজেলার আটটি ইউনিয়নের অর্ধশত গ্রামের প্রায় তিন হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। আমন বীজতলা, কাঁচা রাস্তাঘাট, পুকুর, গাছপালাসহ ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে, কলমাকান্দা সদর, বাসাউড়া, মন্তলা, চানপুর, আনন্দপুর, রঘুরামপুর, বিশরপাশা, নাগডড়া, পাঁচগাঁও ধারাপাড়া, নয়াচৈতা, রামনাথপুর, নক্লাই, নতুনবাজার, তেলীগাও, বাঘারপাড়, বিষ্ণুপুর, শিবনগর, বাউশাম, সুন্দরীঘাট, ভাষানকুড়া, রহিমপুর, কান্তপুর, নলছাপ্রা, পাচকাঠা, ভাবানীপুর, শিবনগর, বালুছড়া, ইয়ারপুর, গোড়াগাও, গোয়াতলা, কৈলাটী, শুনই, গোবিন্দপুর, বড়ইউন্দ, কেশবপুর, সালেঙ্গা, কুতিগাও, ভাটিপাড়া গ্রামের খাল-বিল, ছড়া ও জলাশয়সমূহ পানিতে ভরপুর হয়ে ওঠে। এতে করে মাঠ, ঘাট, রাস্তা পানিতে ডুবে তিন হাজার পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন।

এ বন্যায় নিম্নাঞ্চলের এলাকার প্রায় পাঁচশতাধিক পুকুর পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে আর্থিকভাবে ক্ষতির মুখে স্থানীয় কৃষক ও মৎস্যচাষীরা।

কলমাকান্দা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. ফারুক আহম্মেদ জানান- রোববার সকাল পর্যন্ত ৫৫ মি.লি. বৃষ্টিপাত হয়েছে। এ বন্যার পানিতে ১৪ একর আমন বীজতলা পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সোহেল রানা ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক তালুকদার বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শন করে জানান, বন্যার্তদের মধ্যে নগদ টাকা ও চাল বিতরণ করা হচ্ছে। তাছাড়া এ দুর্যোগ মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসনের সব ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে বলেও তারা জানান।