দেশের ইতিহাসের সংক্ষিপ্ততম বাজেট অধিবেশন কাল: স্বাস্থ্য সুরক্ষা জোরদার করছে সংসদ

প্রকাশিত: ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ, জুন ৯, ২০২০
জাতীয় সংসদ ভবন

নানান সতর্কতা সত্ত্বেও একের পর এক সংসদ সদস্যরা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। ইতোমধ্যে আটজন সংসদ সদস্যসহ বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্যের পরিবারের সদস্যরা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত হয়েছেন সংসদ সচিবালয়ের ৪৩ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী। এনিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।

এই অবস্থায় আগামী বাজেট অধিবেশনকে সামনে রেখে স্বাস্থ্য সুরক্ষা জোরদার করা হচ্ছে। ওই অধিবেশনে দায়িত্ব পালনের জন্য ইতোমধ্যে ৩০০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে করোনা টেস্ট করানো হয়েছে। প্রবীণ সদস্যদের অধিবেশনে না আসার জন্য উদ্বুদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সংসদ সদস্যদের মধ্যে সর্বশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন যশোর-৪ (বাঘারপাড়া-অভয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য রনজিত কুমার রায়।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন পার্বত্য বান্দরবান আসন থেকে নির্বাচিত বীর বাহাদুর উশৈসিং।

এদিকে প্রথম করোনা আক্রান্ত সংসদ সদস্য নওগাঁর-২ আসনের মো. শহীদুজ্জামান সরকার ইতোমধ্যে পুরোপুরি সুস্থ্য হয়েছেন। প্রথমে পজেটিভ আসলেও দ্বিতীয় দফা টেস্টে নেগেটিভ এসেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার-৫ আসনের এবাদুল করিম বুলবুল ও চট্টগ্রাম-৬ আসনের এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর। এছাড়া জামালপুর-২ আসনের ফরিদুল হক খান দুলাল ও চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালি) আসনের মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী চিকিৎসাধীন থাকলেও অনেকটা সুস্থ্য বলে তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সিরাজগঞ্জ-১ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের অবস্থা এখনো সংকটাপন্ন। গত পহেলা জুন নিউমোনিয়া জনিত সমস্যা নিয়ে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হন এই প্রবীণ রাজনীতিবিদ। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করা হলে ফলাফল পজিটিভ আসে।

সংসদের প্রধান হুইপ নূর-এ আলম চৌধুরী লিটন জানান, করোনা পরিস্থিতিতে ঝুঁকি ও আতংক থাকলেও তা মোকাবেলার জন্য কঠোর সতর্কতাও অবলম্বন করা হচ্ছে। বাজেট অধিবেশন থেকে যাতে নতুন কেউ সংক্রমিত না হোন, সে বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রবীণ ও অসুস্থ এমপিদের অধিবেশনে না আসার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

উল্লেখ্য, নতুন বছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটের উপর মাত্র ৫দিন আলোচনা হবে। আর পুরো বাজেট পাসের প্রক্রিয়া ব্যয় হবে ১০দিন। সেক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২০ ঘণ্টা বাজেট আলোচনা হতে পারে। গত বছর প্রায় ৬০ ঘণ্টা আলোচনা হয়েছিলো। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত এই আলোচনা চলবে। আগামী ২৯ জুন অর্থবিল ও ৩০ জুন মূল বাজেট পাস হবে। মাত্র ১২ কার্যদিবসে আগামী ৯ জুলাই শেষ হতে পারে দেশের ইতিহাসের সংক্ষিপ্ততম বাজেট অধিবেশন।