দুর্নীতি-লুটপাটের জন্য বিরোধী দলকে দমন করা হচ্ছে: রিজভী

প্রকাশিত: ৪:২১ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০২০

দুর্নীতি ও লুটপাট করার জন্যই বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গুম, খুন ও মিথ্যা মামলা দিয়ে দমন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ শুক্রবার ঢাকা মহানগর উত্তরের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম নকীসহ বিএনপি ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের রিজভী এসব কথা বলেন।

ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসানের মৃত্যুতে আব্দুল আলিম নকী ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান।

রুহুল কবির রিজভী বলেন- ‘আজকে গুমের সমর্থনে আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হচ্ছে। আজকে বাংলাদেশে গুম হচ্ছে, বিচারবহির্ভুত হত্যা হচ্ছে। আর এসব অপকর্মের সঙ্গে রাষ্ট্র জড়িত। মানব বিধ্বংসী কাজের সঙ্গে রাষ্ট্র জড়িত। ভিন্ন মতাবলম্বীদের ওপর চলছে নৃশংস আক্রমণ, অত্যাচার অমানবিক কর্মকাণ্ড। ভিন্নমতকে দমন করার জন্য রাষ্ট্রের সব যন্ত্র প্রয়োগ করা হচ্ছে। যেখানে গণতন্ত্র অনুপস্থিত আছে সেখানে এ কাজগুলো হচ্ছে। এর সবচেয়ে বড় বহিঃপ্রকাশ বাংলাদেশ।’

রিজভী আরও বলেন- ‘আমাদের ছেলেরা হারিয়ে যাচ্ছে, গুম হচ্ছে। একের পর এক নিরুদ্দেশ হয়ে যাচ্ছে। লাখ লাখ জীবনের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি, গণতন্ত্রের জন্য; কথা বলার জন্য। তাহলে আজকে এ পরিস্থিতি কেনো? মিছিল করা যায় না, কথা বলা যায় না। আর কথা বলতে গেলে বা ভিন্নমত প্রকাশ করলে সে গুম হয়ে যাচ্ছে। গ্রেফতার করা হচ্ছে, মিথ্যা মামলা দেওয়া হচ্ছে। এটা অমানবিক রাষ্ট্রের একটি দৃষ্টান্ত। এখানে স্বাভাবিক জীবনযাপন করা যায় না।’

সাবেক এ ছাত্রনেতা বলেন- ‘মানুষের জীবনের কোনো নিরাপত্তা নেই। এ রকম তো হওয়ার কথা না। দেশে বিরোধী দল থাকবে সরকারি দল থাকবে। আজকের বিরোধী দলের নেতাকর্মীরা থাকে জেলখানায় আর সরকারি দলের নেতাকর্মীরা দুর্নীতি লুটপাট করে সারাদেশ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। তাহলে কি এই দুর্নীতি-লুটপাটের জন্যই বিরোধী দলকে দমন করছেন? মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে নেওয়া হচ্ছে। গোটা রাষ্ট্রের সম্পদ আত্মসাৎ করার জন্যই কি এগুলো করছেন? তারা একদলীয় শাসন ব্যবস্থা চালু রেখেছেন। সুষ্ঠু নির্বাচন দেন না। রাতের অন্ধকারে ভোট চুরি করছেন। এটা চলতে পারে না।’

বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে রিজভী বলেন- ‘গণতন্ত্রের জন্য যারা লড়াই করছেন, তাঁরা সত্যের পথে, ন্যায়ের পথে আছেন। আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার অনুপ্রেরণায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করে যাচ্ছি। তিনি নিজে নির্যাতন সহ্য করেছেন, যন্ত্রণা ভোগ করেছেন, তার পরও মাথা নত করেন নাই। এই সরকারের ষড়যন্ত্রে সুদূর প্রবাসে অবস্থান করছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। তিনি দিন-রাত সংগঠনের জন্য চিন্তা করছেন এবং সেখান থেকে দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। তাই আপনারা মনোবল হারাবেন না। যতই বাধা-বিপত্তি আসুক, আমরা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবোই।’

জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি বজলুল বাসিত আঞ্জু, সহসভাপতি মাসুদ খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক, দপ্তর সম্পাদক এ বি এম রাজ্জাক, ঢাকা মহানগর যুবদল উত্তরের সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টনসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।