দাড়ি: একমাত্র দৃশ্যমান সুন্নত, যা নিয়ে কবরে উপস্থিত হবেন… (২য় পর্ব)

প্রকাশিত: ৩:০৮ অপরাহ্ণ, মে ৩১, ২০২০

লিখেছেন রুহুল কবীর (অযাচিত লেখক)

•••আগের পর্বের সূত্র ধরে•••

এখনকার সময়ে মুসলিম অমুসলিম সবাই-ই কিন্তু দাড়ি রাখে। অমুসলিমরা দাড়ি রাখে স্টাইল বাড়ানোর জন্য, আর মুসলিমদের দাড়ি রাখতে বলা হয়েছে নবীর সুন্নত (এবং, ওয়াজিব) পালনের জন্য। যদি এমনটা মনে করেন যে, দাড়িও রাখবো, কিন্তু একটু খোচাখোচা স্টাইলে রাখলাম; সুন্নাহ পালনও হবে, আবার স্টাইলও হবে। না ভাই! খোচাখোচা দাড়ি সুন্নাহ পরিপন্থী। আবার, আপনি যদি একজন অমুসলিম সেলিব্রেটির দাড়ি দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে দাড়ি রাখেন, তাহলে আপনি সেই সেলিব্রেটিকেই অনুসরণ করলেন, নবীকে নয়। তখন আপনার সাথে সেই অমুসলিমের পার্থক্য থাকলো না, এবং নবীর সুন্নাহ পালনের ফযিলতও আপনি ভোগ করতে পারলেন না। কারণ আপনার নিয়ত শুদ্ধ নয়। নিয়ত ঠিক না থাকলে ভাল কাজও পণ্ড হয়ে যায়। বুখারী শরীফের একদম প্রথম হাদীসেই এ সম্পর্কে বলা হয়েছে, “সকল কাজই (ও তার ফলাফল) নিয়তের উপর নির্ভরশীল”

সুতরাং, আপনি যাকে ফলো করছেন, সে অনুযায়ী-ই আপনার কাজ বিবেচনা করা হবে। “যে যাদেরকে অনুসরণ করে সে তাদেরই দলভূক্ত, এবং কিয়ামতের দিন তারা তাদের সাথেই থাকবে” [৬]

যারা মনে করেন— দাড়ি রাখলে হুজুর-হুজুর লাগে, গ্রাম্য ক্ষেত ক্ষেত লাগে; তাদেরকে বলি, হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দাড়ি রেখেছিলেন, তিনি কি সুন্দর ছিলেন না? নাকি দাড়ি রাখায় তার সৌন্দর্য কমে গিয়েছিল? নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর রূপের বর্ণনা দেওয়ার আগে হযরত ইউসুফ (আঃ) এর রূপের বর্ণনা দিই।

ইউসুফ (আঃ) যখন মিশরে দাস হিসেবে বিক্রি হয়ে গেলেন এবং রাজ-দরবারে ধীরে ধীরে বড় হতে থাকলেন, তখন তাঁর রূপ-সৌন্দর্য দেখে মিশরের ফার্স্ট লেডি জুলাইখা তাঁর প্রেমে পড়ে গেল। সে খবর ছড়িয়ে পড়া মাত্রই জুলাইখার সঙ্গী-সাথী, বান্ধবীরা ছি ছি করা শুরু করে দিলো। এমন রুচি যে, শেষমেশ সামান্য একটা দাসের প্রেমে?

এ কথা জুলাইখার কানে গেল। অতঃপর সে বান্ধবীদের নিয়ে একদিন একটা পার্টির আয়োজন করলো। মনেমনে ভাবলো— দাড়া তোদের দেখাচ্ছি কার প্রেমে পড়েছি আমি!

দস্তরখানে বসিয়ে সবাইকে একটা করে আপেল আর একটা করে ছুরি দিল। আর বললো, আমি যখন বলবো তখন তোমরা আপেলটা কাটবে। তারপর জুলাইখা ইউসুফ (আঃ)-কে বললো রুমে ঢুকতে আর বান্ধবীদেরকে বললো ফল কাটতে। অপলক হয়ে ইউসুফ (আঃ) এর সৌন্দর্য দেখতে দেখতে আপেল কাটতে গিয়ে সবাই নিজেদের হাত কেটে ফেললো। [৭]

মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ওয়াফাতের পর মদীনার মেয়েরা মা আয়েশা (রাঃ) এর কাছে এসে জিজ্ঞাসা করলো— আমাদের নবী দেখতে কেমন ছিলেন, আম্মাজান?

তো আয়িশা (রাঃ) বললেন, “তোমরা তো কুরআনে ইউসুফ (আঃ) এর ঘটনা পড়েছ, মিশরের মেয়েরা তাকে দেখে হাত কেটে ফেলেছিল। ও মদীনার মেয়েরা, তোমরা যদি তোমাদের নবীকে দেখতে তাহলে তোমরা তোমাদের গলা কেটে ফেলতে।” [৮]

নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দাড়ি ছাড়া-ই অপূর্ব সুন্দর ছিলেন নাকি দাড়িসহ? দাড়িসহ! তাহলে যারা মনে করেন দাড়ি সৌন্দর্য কমিয়ে দেয়, দাড়ি রাখলে বুড়াবুড়া লাগবে, আনস্মার্ট লাগবে; সেটা কতটুকু যৌক্তিক হলো?

আরেকটা হাদীস বলি, জাবির (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি একবার চাদর ও লুঙ্গি পরিহিতাবস্থায় রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে এক পূর্ণিমা রাত্রির চাঁদনীতে দেখি। তখন, আমি একবার তাঁর দিকে ও একবার চাঁদের দিকে তাকিয়ে দেখতে থাকি যে, কে বেশী সুন্দর। আমার মনে হলো, তিনিই চাঁদের চেয়ে বেশী সুন্দর। [৯]

তাহলে বলেন তো ভাই, তাঁর এই সৌন্দর্য কি দাড়ি ছাড়া, নাকি দাড়িসহ? এমনকি বিজ্ঞানীরাও সম্প্রতি গবেষণায় দেখিয়েছেন যে, দুই চোয়ালের মাঝের দূরত্ব পুরুষালি ভাবের ইন্ডিকেটর, আর দাড়ি এই জিনিসটাই বাড়িয়ে তোলে। তাছাড়া বিভিন্ন রোগ-বালাই থেকে সুরক্ষা, ইউভি-রে থেকে রক্ষা, স্কিন প্রোটেকশন ইত্যাদি ইত্যাদি ফ্যাসিলিটি তো থাকছেই। [১০]

সবশেষ কথা— দাড়ি হচ্ছে ‘একমাত্র দৃশ্যমান সুন্নাহ’ যা নিয়ে আপনি কবরে উপস্থিত হবেন। আপনি জানেন না আপনি কখন মারা যাবেন। তাই যদি আপনি ভেবে থাকেন— বয়স হোক, তখন নাহয় রেখে দিবো। হয়ত মিস করবেন। হয়তোবা ‘একমাত্র দৃশ্যমান সুন্নাহ’ ব্যতিরেকেই উপস্থিত হতে হবে কবরে।

আল্লাহ আমাদের সবাইকে সঠিক বুঝ দান করুক। গুরুত্বপূর্ণ জিনিসের গুরুত্ব বুঝার তাওফিক দান দান করুক। আমিন।

√ রেফারেন্সঃ

  1. ৬) Hadithbd.com; ভাবার্থ, সহীহ মুসলিম (ইঃফাঃ); অধ্যায়ঃ ৪৭; হাদীস নং-৬৪৭০
    ৭) সূরা ইউসুফ, আয়াত ৩১-৩৩
    ৮) খুতুবাতে হাকীমুল ইসলাম ক্বারী তৈয়ব সাহেব রহ. (দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ)
    ৯) শামায়েলে তিরমিযী ই.ফা., ১ম অধ্যায়, হাদীস নং-১০
    ১০)www.sciencedirect.com/science/article/pii/S1090513816300332
    www.thestar.com.my/lifestyle/health/2019/08/26/growing-beard-good-for-health
  2. লেখকের ফেইসবুক আইডিঃ
    https://www.facebook.com/ruhul.kabir.75033149