তিন মাসেও দুর্বল হয় নি করোনা; যোগ হয়েছে নতুন উপসর্গ

প্রকাশিত: ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৬, ২০২০

৩ মাসেও দুর্বল হয় নি নভেল করোনাভাইরাস(কভিড-১৯)। জেনোম সিক্যুয়েন্সে গতিপ্রকৃতির কিছুটা পরিবর্তন দেখা গেলেও এখনো ভয়ানকই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে এই সময়ে করোনা আক্রান্তদের যোগ হয়েছে নতুন উপসর্গ। পাশাপাশি উপসর্গ ছাড়া রোগীও বাড়ছে বলে জানান চিকিৎসকরা।

ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। সময়ের সাথে ছড়িয়েছে গোটা বিশ্বে। সেই সাথে রূপও বদল করছে ভাইরাসটি।

বাংলাদেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয় ৮ মার্চ, প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। সারা বিশ্বে ৪৫ হাজার জেনোম সিক্যুয়েন্স বিশ্লেষণে দেখা গেছে, বেশ কয়েকটি সাব গ্রুপে ভাগ হয়েছে ভাইরাসটি। ব্যাপক পরিবর্তন না দেখা গেলেও কিছু গবেষণায় এর ক্ষমতা বাড়ার বা কমার তথ্য মিলেছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ করোনা ভাইরাসের ৩টি নমুনার সিকোয়েন্সিং করে। এতে দেখা যায় ভাইরাসটির সঙ্গে সবচেয়ে বেশি মিল পাওয়া যায় ইউরোপিয়ান উৎসের, বিশেষ করে সুইডেনের সঙ্গে।

দেশে ভাইরাসের গতিবিধি খুব বেশি পরিবর্তন না হলেও ৩ মাসের ব্যবধানে আক্রান্তদের মধ্যে দেখা দিয়েছে নতুন উপসর্গ। গত এক মাসে উপসর্গ হিসেবে দেখা দিয়েছে ঘ্রাণ না পাওয়ার ঘটনা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশে উপসর্গ ছাড়াও করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা অনেক। আরও ব্যাপকহারে নমুনা পরীক্ষা বাড়ালে স্পষ্ট হবে বিষয়টি।