জ্যোতির্বিজ্ঞানে অবদান রাখা মুসলিম নারী

প্রকাশিত: ৪:৩৬ অপরাহ্ণ, মে ২৯, ২০২০

লিখেছেনঃ আব্দুস সাত্তার আইনী

মারয়াম আল-আস্তুরলাবি। তিনি বর্তমান উত্তর সিরিয়ার আলেপ্পো নগরীতে খ্রিস্টীয় দশম শতাব্দীতে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর মূল নাম আল-ইজলিয়্যাহ বিনতে আল-ইজলি আল-আস্তুরলাবি। তাঁর পিতা কুশিয়ার আল-জিলানি সে সময়কার একজন প্রাজ্ঞ ও বিচক্ষণ আলেম ছিলেন। তাঁর হাতেই মারয়াম আল আস্তুরলাবীর লেখাপড়ার হাতেখড়ি। জ্যোতির্বৈজ্ঞান সম্পর্কে তাঁর পিতামহ অনেক গ্রন্থ রচনা করেছেন। যেমন : মাজমাল ‘আল-উসূল ফী আহকাম আন-নুজুম’ (مجمل الأصول في أحكام النجوم), ‘আল-যিজ আল-জামি’ (الزيج الجامع), ‘আল-মাদখাল ফী সানাআ আহকাম আন-নুজুম’ (المدخل في صناعة أحكام النجوم) ও ‘আস্তুরলাব’ (الأصطرلاب)।

মারইয়াম ও তাঁর পিতা মুহাম্মদ ইবনে আবদুল্লাহ নাস্তুলুসের শিষ্য ছিলেন। নাস্তুলুস ছিলেন প্রখ্যাত জ্যোতির্বিজ্ঞানী, যিনি ইতিহাসে সর্বপ্রথম বিস্তৃত অ্যাস্ট্রোল্যাব নির্মাণ করেছিলেন। নাস্তুলুসের কাছে শিক্ষাগ্রহণের পর মারইয়াম ‘উন্নত অ্যাস্ট্রোল্যাব’ নির্মাণে ব্রতী হন। তাঁর জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক গবেষণায় এটি ছিলো একটি উৎকর্ষের প্রতীক। তিনি তাঁর অ্যাস্ট্রোল্যাবে নতুন নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করেছিলেন, যাতে নির্দিষ্ট সময়ে মহাকাশের বস্তুরাশির নির্দিষ্ট অবস্থান নির্ণয় করা যায়।
হিজরি চতুর্দশ শতকে (খ্রিস্টীয় দশম শতকে) মারইয়াম আল-আস্তুরলাবি যখন বসবাস ও গবেষণা করতেন আলেপ্পোতে, সেই সময় সেখানকার গভর্নর ছিলেন সাইফুদ্দাওলাহ। তিনি আলেপ্পো স্টেট প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, যা ছিলো হামদানি সাম্রাজ্যের একটি প্রতীক। মারইয়াম সাইফুদ্দাওলার রাজদরবারে ৯৪৪-৯৬৭ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত মহাকাশ-গবেষক হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। এই সময়ে তিনি একটি নয়, বিভিন্ন ধরনের একাধিক অ্যাস্ট্রোল্যাব নির্মাণ করেছিলেন।
মারইয়াম আল-আস্তুরলাবি যে-অ্যাস্ট্রোল্যাব নির্মাণ করেছিলেন তা অনেক আধুনিক নৌবৈজ্ঞানিক ও জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক যন্ত্রাপাতির ভিত্তি তৈরি করে দিয়েছে বলে মনে করা হয়। যেমন : কম্পাস, স্যাটেলাইট ও বিশ্বজনীন অবস্থান-নির্ণয়াক ব্যবস্থা, যা সংক্ষেপে জিপিএস (গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেম) নামে পরিচিত।
মার্কিন জ্যোতির্বিজ্ঞানী হেনরি ই. হল্ট ১৯৯০ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার সান ডিয়াগোতে অবস্থিত পালোমার মানমন্দিরে গবেষণাকালে একটি গ্রহাণু-বেষ্টনী (asteroid belt) আবিষ্কার করেন। তিনি এটির নাম দেন ‘মারইয়াম আল-আস্তুরলাবি’।
.
অ্যাস্ট্রোল্যাব (astrolabe) একটি বিস্তৃত নতি-পরিমাপক যন্ত্র (inclinometer)। একে এনালগ ক্যালকুলেটরও বলা যেতে পারে। এই যন্ত্র বিভিন্ন ধরনের জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম। জ্যোতির্বিজ্ঞানী ও নাবিকেরা মহাকাশীয় বা মহাজাগতিক বস্তুর দিগ্বলয়ের উপরের উচ্চতা, দিন বা রাত নির্ণয়ের জন্য এই যন্ত্র ব্যবহার করতেন। গ্রহ ও নক্ষত্র নির্ণয়ের জন্যও এই যন্ত্র ব্যবহার করা হতো। নির্দিষ্ট স্থানীয় সময়ে স্থানীয় অক্ষাংশ, জরিপ ও ত্রিভুজীকরণে (triangulation))ও অ্যাস্ট্রোল্যাব ব্যবহৃত হতো। ধ্রুপদী সভ্যতায়, ইসলামি স্বর্ণযুগে, ইউরোপীয় মধ্যযুগে ও আবিষ্কারের যুগে উপরিউক্ত সব কাজের জন্য অ্যাস্ট্রোল্যাবের ব্যাপক ব্যবহার ছিলো। ইসলামি বিশ্বে জ্যোতির্বিজ্ঞানের বিকাশকালে মুসলিম বিজ্ঞানীরা অ্যাস্ট্রোল্যাবের নকশার ক্ষেত্রে কৌনিক স্কেল প্রবর্তন করেন। দিগংশকে নির্দেশ করে এমন বৃত্ত যুক্ত করেন। কিবলা অনুসন্ধানের উপায় হিসেবেও যন্ত্রটির ব্যবহার ছিলো। অষ্টম শতাব্দীর গণিতজ্ঞ মুহাম্মদ আল-ফাযারি প্রথম অস্ট্রোল্যাব-নির্মাতা হিসেবে কৃতিত্ব অর্জন করেন।