চীন-ভারত সংঘর্ষঃ বিশ ভারতীয় সৈন্য নিহত

প্রকাশিত: ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

ভারতের বিতর্কিত লাদাখ অঞ্চলে চীনা সৈন্যদের সাথে সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন ভারতীয় সৈন্য নিহত হয়েছে বলে ভারতীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

গত ৪৫ বছরে দু দেশের সৈন্যদের মধ্যে এটাই সবচেয়ে গুরুতর সীমান্ত-সংঘর্ষ। তবে সংঘর্ষ এখন থেমে গেছে বলে ভারতীয় বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়।

ভারত প্রথম তিনজনের মৃত্যুর কথা বললেও মঙ্গলবার বিকেলে কর্মকর্তারা জানান, গুরুতর আহত আরো কয়েকজন সৈন্য পরে মারা গেছেন।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বলা হয়, ১৭ জন ভারতীয় সৈন্য প্রচণ্ড ঠাণ্ডার মধ্যে ঘটা ওই সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়, এবং পরে মৃত্যুবরণ করে। আগের তিনজন মিলিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ায় ২০।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে ভারতীয় সৈন্যদের ‘পিটিয়ে হত্যা করার’ কথা বলা হয়েছে, কিন্তু সামরিক বাহিনী এ খবর নিশ্চিত করে নি।

দু পক্ষই বলছে, এ সংঘর্ষে কোন গুলি ছোঁড়া হয় নি।

ভারতের এএনআই বার্তা সংস্থা বলছে, ভারত এমন তথ্য পেয়েছে যে চীনের দিকে ৪৩ জন হতাহত হয়েছে। ভারতের প্রথম বিবৃতিতেও চীনা পক্ষে হতাহত হবার কথা বলা হয়েছিলো, তবে চীন এখন পর্যন্ত এরকম কিছু নিশ্চিত করে নি।

এএনআই বলছে, তাদের কিছু সূত্র জানিয়েছে যে হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অভিযোগ করছে, গালওয়ান উপত্যকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এল এ সি) মেনে চলার জন্য গত সপ্তাহে দু পক্ষের যে ঐকমত্য হয়েছিলো – চীন তা ভঙ্গ করেছে।

ভারতীয় বিবৃতিতে বলা হয়, চীনা পক্ষ একতরফাভাবে স্থিতাবস্থা পরিবর্তন করার চেষ্টা করলে এক সহিংস সংঘাত ঘটে।

চীনা পক্ষ তাদের দিক থেকে কেউ হতাহত হবার কথা না বললেও ভারতের বিরুদ্ধে সীমান্ত পার হয়ে চীনা অংশে ঢুকে পড়ার অভিযোগ আনে।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেন, “ভারত সোমবার দু‌’‌দফায় সীমান্ত লংঘন করে, উস্কানি দেয় এবং চীনের সৈন্যদের আক্রমণ করে। এর ফলে দুদেশের সীমান্ত রক্ষীদের মধ্যে হাতাহাতি হয়।”

বিবিসি/এনডিটিভি।