কোভিড-১৯ হেলথ পাসের বিরুদ্ধে ফ্রান্সে ব্যাপক বিক্ষোভ

প্রকাশিত: ২:৫৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২১

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে পাবলিক ভেন্যুতে প্রবেশ করতে ‘কোভিড-১৯ হেলথ পাস’ বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফ্রান্স সরকার। সরকারের নেওয়া এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে দেশটির হাজারও মানুষ। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর নেতৃত্বাধীন সরকারের ‘কোভিড-১৯ হেলথ পাস’ সংক্রান্ত নির্দেশনার বিরুদ্ধে দেশটির রাজধানী প্যারিসসহ বড় শহরগুলোতে প্রতিবাদ করেছে বিক্ষোভকারীরা। গতকাল শনিবারের বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় বিক্ষোভকারীদের। এ সময় তিন পুলিশ সদস্য আহত হন। এবং ১৯ বিক্ষোভকারীকে আটক করে পুলিশ।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে নতুন একটি আইন জারি হতে যাচ্ছে ফ্রান্সে। এই আইন অনুসারে, যদি কেউ কফি শপ বা রেস্তোরাঁয় যেতে চান, তবে তাঁর করোনাভাইরাস হেলথ পাস থাকতে হবে। এ ছাড়া উড়োজাহাজে ভ্রমণ বা আন্তঃনগর ট্রেনে যাতায়াতের ক্ষেত্রে লাগবে এই পাস।

দুই ডোজ টিকা নিলেই পাওয়া যাবে এই হেলথ পাস। কিন্তু এখনও বহু নাগরিক টিকা না পাওয়ায়, সরকারের এমন পদক্ষেপের বিরুদ্ধে শনিবার টানা তৃতীয় সপ্তাহের বিক্ষোভে নামেন আন্দোলনকারীরা।

এদিনের আন্দোলন গত সপ্তাহের তুলনায় সহিংস রূপ নেয়। রাজধানী প্যারিসে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ করেন। ফলে রাজধানীজুড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে লাঠিপেটা করে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যেরা।

এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ সৃষ্টি হলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হন। এরপর জল কামান ও কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়লে ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে বিক্ষোভকারীরা। এদিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সামনেও অবস্থান করে বিক্ষুব্ধ জনতা।

ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত ৬১ লাখ ২৭ হাজার ১৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ১১ হাজার ৮৬৭ জনের।