করোনা রোধে সুপারিশযুক্ত সুনির্দিষ্ট প্রতিবেদন জমা দেবে চীনা-বিশেষজ্ঞ দল

প্রকাশিত: ৬:০৯ পূর্বাহ্ণ, জুন ২২, ২০২০
বাংলাদেশ-চীন সম্পর্ক

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি কীভাবে আরও ভালোভাবে মোকাবিলা করতে পারে সে সম্পর্কে সুপারিশযুক্ত চারটি সুনির্দিষ্ট প্রতিবেদন বাংলাদেশের কাছে জমা দেবে বাংলাদেশে সফররত চীনের বিশেষজ্ঞ দল।

আজ সোমবার চীনা-বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদল ঢাকা ত্যাগ করার আগে ঢাকার চীনা দূতাবাসের মাধ্যমে প্রতিবেদনগুলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে হস্তান্তর করবে।

গতকাল রোববার বাংলাদেশ কূটনৈতিক সংবাদদাতা সমিতির (ডিকাব) সদস্যদের সঙ্গে অনলাইন মিটিংয়ে ঢাকার চীনা দূতাবাসের কাউন্সিলর ও ডেপুটি চিফ অব মিশন (ডিসিএম) হুয়ালং ইয়ান এ তথ্য জানান।

এর আগে ডা. শুমিং জিয়ানু তাদের প্রতিবেদনের ওপর একটি অভিমত উপস্থাপন করেন। ব্রিফিংয়ের শুরুতে ডিকাবের সভাপতি আঙ্গুর নাহার মন্টি তার বক্তব্য তুলে ধরেন।

এক প্রশ্নের জবাবে ইয়ান বলেন, বাংলাদেশে সর্বোচ্চ আক্রান্ত কতো হতে পারে বা হবে সেটা বলা সম্ভব নয়। গবেষকরা কেবল বলতে পারবেন যে ভাইরাসটি পৃথিবীতে কতো দিন স্থায়ী থাকবে।

‘এ ক্ষেত্রে দ্বিপক্ষীয় এবং বহুপক্ষীয় সহযোগিতা খুব গুরুত্বপূর্ণ, কোনো দেশ একা এ সমস্যার সমাধান করতে পারবে না’- বলেন চীনা কর্মকর্তা। তিনি আরও বলেন- তারা চীনের তুলনায় বাংলাদেশের পরিস্থিতি সম্পূর্ণ আলাদা বলে মনে করেন এবং দলটি বাংলাদেশের পরিস্থিতি অনুযায়ী সমাধানের পরামর্শ দিয়েছে।

তারা জনসচেতনতার অভাবকে অন্যতম সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যকর্মীদের অত্যন্ত কঠোর পরিশ্রমী বলে প্রশংসা করেছেন।

চীনা দূতাবাস জানায়, চীনা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের বাংলাদেশ সফর রাষ্ট্রপতি শি জিনপিংয়ের আশ্বাসের একটি প্রতিফলন।

দুই সপ্তাহ বাংলাদেশে অবস্থানকালে বিশেষজ্ঞরা নির্ধারিত হাসপাতাল, কোয়ারেন্টিন সেন্টার এবং পরীক্ষা কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে করোনা মহামারী নিয়ে আলোচনা করেন।

বাংলাদেশে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করায় শি জিনপিং ২০ মে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন।

আলোচনায় রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং কোভিড-১৯ মোকাবিলায় সর্বাত্মক সহযোগিতায় সত্যিকারের বন্ধু হিসেবে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেন।