করোনায় ভোট গ্রহণ; সমালোচনার মুখে ইসি

প্রকাশিত: ১০:২৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৬, ২০২০

দেশে করোনা সংক্রমণ বাড়ার মধ্যেই ১৪ই জুলাই বগুড়া-১ এবং যশোর-৬ আসনে উপ নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে বিশেষজ্ঞরা বলছেন- মহামারী পরিস্থিতিতে আদালতের কাছে পরামর্শ চাইতে পারতো কমিশন। পাশাপাশি ভোটাদের উপস্থিতি ও করোনা সংক্রমণ ঝুঁকি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা।

দেশে করোনায় মৃত্যু ২ হাজার ছাড়িয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর দেশবাসিকে পরামর্শ দিচ্ছে ভিড় এড়িয়ে চলতে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হতে। এর মাঝেই সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা দেখিয়ে বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হতে যাচ্ছে ১৪ জুলাই।

করোনা সংক্রমণের মধ্যে গেলো ২১ মার্চ ঢাকা-১০, গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরহাট-৪ আসনে উপ-নির্বাচন করে কমিশন। কম ভোটার উপস্থিতির এ নির্বাচনগুলো নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়ে ইসি। তারপর স্থগিত হয় চট্টগ্রাম সিটির নির্বাচন ও বগুড়া, যশোরের উপ-নির্বাচন।

মহামারীর মধ্যে ভোট গ্রহণের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেন- সংবিধানের দোহাই দিয়ে ভোট করছে ইসি যদিও একাধিকবার সংবিধান লঙ্ঘণের নজির আছে এই কমিশনের।

নির্বাচন কমিশন বলছে- সংবিধান অনুসারে সংসদীয় আসন শূন্য হওয়ার ৯০ দিন এবং তা সম্ভব না হলে আরো ৯০ দিন, মোট ১৮০ দিনের মধ্যে উপ-নির্বাচন করতে হবে। তবে মহামারি পরিস্থিতিতে নির্বাচন করা যাবে কি না, সেটি আলাদতের কাছে জানতে চাইতে পারতো কমিশন, এমন পরার্মশ সাবেক নির্বাচন কমিশনারের।