করোনায় আওয়ামী লীগের প্রায় সাড়ে ৫শ’ নেতাকর্মীর মৃত্যু হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৫, ২০২০

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ করোনাকালে মানুষকে সহায়তা করার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। সে কারণে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রায় সাড়ে ৫শ’ নেতাকর্মী এই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। হাজার হাজার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী আক্রান্ত হয়েছে।’

গতকাল রোববার (০৪ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ সিনেমা এন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট-বিসিটিআই এর শিক্ষকবৃন্দের সাথে মতবিনিময় ড. সভায় হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন।

শিক্ষকবৃন্দের সাথে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। এ সময় গত শনিবার অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা সম্পর্কে প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘করোনার মধ্যে এই প্রথম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে সংগঠনকে গতিশীল করার জন্য এবং যে সমস্ত জায়গায় সম্মেলন হয়েছে, সেখানকার কমিটিগুলোকে পূর্ণাঙ্গ করার জন্য এবং যেখানে কোনো সম্মেলন হয় নাই, সেখানে সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সাংগঠনিক সম্পাদক, যুগ্ম সম্পাদকদেরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, তার সাথে প্রেসিডিয়াম মেম্বারদেরকেও বিভাগীয় পর্যায়ে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনাকালে যখন মানুষ আতংকিত, অনেকে হাত গুটিয়ে বসেছিলেন, সমস্ত প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও তখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বসে ছিল না, প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় নেতাকর্মীরা মানুষের কল্যাণের জন্য, মানুষকে সহায়তা করার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছিল উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, সেকারণে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রায় সাড়ে ৫শ’ নেতাকর্মী এই করোনাভারাইসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। হাজার হাজার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী আক্রান্ত হয়েছে। মন্ত্রিসভার সদস্য ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কয়েকজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। অন্য কোনো দলের ক্ষেত্রে এটি হয় নি। কারণ অন্য কোন দল আওয়ামী লীগের মতো দুর্যোগ মোকাবিলায় ঝাঁপিয়ে পড়ে নি। সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ১ কোটি ২৫ লক্ষ মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হয়েছে। করোনাকালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যেভাবে পাশে ছিল, যতদিন করোনা থাকবে, ততদিন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জনগণের পাশে থাকবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই নির্দেশনা দিয়েছেন।’

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে এবং ১২ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকায় পরিচয় গোপন করে আওয়ামী লীগের ঢুকে পড়া সুযোগ সন্ধানী এবং অনুপ্রবেশকারীদের বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কোনো পর্যায়েই হবে না বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে, জানান আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।