করোনার টিকা নিয়ে সরকার তেলেসমাতি কাণ্ড ঘটিয়েছে : মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত: ৯:০৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০২১
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

করোনাভাইরাসের টিকার দাম নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘করোনার টিকা নিয়ে সরকার তেলেসমাতি কাণ্ড ঘটিয়েছে। সরকার টিকা নিয়ে দুর্নীতি করেছে, ব্যবসা করতে চেয়েছে। মানুষের জীবনকে জিম্মি করে তারা টিকা নিয়ে ব্যবসা করছে।’

বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, ‘সরকার টিকার দাম বলে না। কত দিয়ে কিনছে তা বলে না। যে বলে, তার আবার চাকরি যায়, আপনারা পত্রিকায় দেখেছেন। যে টিকা তিন ডলারে পাওয়া যায়, সেই টিকা তারা কিনছে ১০ ডলারে।’

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর গোরানের ফ্রেন্ডস কনভেনশন সেন্টারে ঢাকা-১০ আসনের বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে ‘করোনা হেলপ সেন্টার’ উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিএনপির মহাসচিব এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এ সময় করোনা প্রসঙ্গে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘করোনা নিয়ে দেশে রাজনীতি হচ্ছে। কেন আমাদের টিকা দিতে এত দেরি হলো? কেন ভারতীয় গিফটের মাধ্যমে শুরু হলো? অ্যাডভান্স টাকার টিকা কেন দেশে আসেনি?’

মির্জা আব্বাস আরও বলেন, ‘সরকার এখন খুঁজে খুঁজে ভ্যাকসিন আনছে। আজ মডার্নার, কাল ফাইজার, পরশু সিনোভ্যাক্স। কেন একসঙ্গে আনতে পারছি না। কারণ একটিই, বিশেষ ব্যক্তিদের সুবিধা দেওয়ার কথা ছিল, সেই বিশেষ ব্যক্তিদের সুবিধা দিতে না পেরে দেরি হয়ে গেছে। এখন সেই বিশেষ ব্যক্তিদের খবর নেই, ওষুধেরও খবর নাই। এই হচ্ছে অবস্থা।’

‘রাস্তায় নামতে হবে, সরকারকে পরাজিত করতে হবে’

অনুষ্ঠানে সরকারের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আওয়ামী লীগকে যদি সরাতে না পারি তবে আমরা আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারব না, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকেও মুক্ত করতে পারব না। হাজার হাজার মানুষ যে মিথ্যা মামলা নিয়ে বসে আছি, তা থেকেও আমরা মুক্ত হতে পারব না। সেজন্য আমি আগাম আন্দোলনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের রাস্তায় নামতে হবে, সোচ্চার হতে হবে এবং আন্দোলনের মাধ্যমে এ ভয়াবহ সরকারকে পরাজিত করতে হবে। তাদের বাধ্য করতে হবে নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দেওয়ার জন্য। যার মাধ্যমে জনগণ ভোট দিয়ে তার প্রতিনিধি নির্বাচিত করবে, সরকার গঠন করবে।’

বিএনপি গত ১০-১২ বছর ধরে সংগ্রাম ও লড়াই করছে উল্লেখ করে দলের মহাসচিব আরও বলেন, ‘আমাদের ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা হয়েছে। ৫০০ বেশি ভাই গুম হয়ে গেছে। হাজারের ওপর মানুষ খুন হয়ে গেছে, অনেককে হাঁটুতে গুলি করে পঙ্গু করে দিয়েছে। সুতরাং আন্দোলন ছাড়া আমাদের কোনো বিকল্প নেই।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘একটি সত্যিকার গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করার জন্য, অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য আমাদের উঠে দাঁড়াতে হবে। বিশেষ করে তরুণ-যুবক যারা আছেন, তাদের জেগে উঠতে হবে। পরিবর্তন আসে সবসময় তরুণদের মাধ্যমে, তাদের নেতৃত্বে, তাদের বীরত্ব ও সাহসিকতার মাধ্যমে। এখন কাজ করতে হবে তরুণ-যুবকদের।’