‘করোনার চীনা টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হতে পারে বাংলাদেশেও’

প্রকাশিত: ৮:৫৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০২০

করোনাভাইরাসে প্রতিরোধে চীনের আবিষ্কৃত সম্ভাব্য ভ্যাক্সিনের দ্বিতীয় ধাপের ট্রায়াল বাংলাদেশে হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে চীনের তৈরি প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ বাংলাদেশেও হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। শুক্রবার হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের ভার্চুয়াল কনফারেন্সিংয়ে অংশ নিয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আরও জানান- পরীক্ষামূলক প্রয়োগের সূত্র ধরে বাংলাদেশও চীনা টিকার উৎপাদন শুরু হতে পারে। এটি বাস্তবায়ন হলে করোনা মোকাবিলায় আরেক ধাপ এগিয়ে যাওয়া যাবে।

করোনার বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আবুল কালাম আজাদ জানান, আগে দেশে আক্রান্ত একজন থেকে আরও দু’জনের বেশি হারে এই ভাইরাস ছড়াতে পারতো। কিন্তু এখন সেই রিপ্রডাকশন রেট বা আর-রেট নেমে এসেছে ১.০৫-এ। এটা খুবই ভালো লক্ষণ। এখন নিচে নামাতে পারলে দুশ্চিন্তা অনেকটাই কমে যাবে। তাছাড়া এখনও প্রতিদিন সংক্রমণের যে সংখ্যা পাওয়া যাচ্ছে তা অনেকটা স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে।