ওয়াসার পানির দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট

প্রকাশিত: ৩:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০২০

সেবার মান না বাড়িয়ে ওয়াসার পানির দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। কারণ ছাড়াই পানির দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত কেনো অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে। একইসঙ্গে পানি সরবরাহ ও পয়:নিষ্কাশন আইনের ২২ নম্বর ধারার দুটি সেকশন চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।

সরবরাহ ও পয়োনিষ্কাশন আইনের ২২ নম্বর ধারার দুটি সেকশনে যা বলা হয়েছে -(২) উপ-ধারা (১) এ যাহা কিছুই থাকুক না কেনো, মুদ্রাস্ফীতির কারণে পরিচালনা ব্যয় বৃদ্ধি পাইলে অতিরিক্ত ব্যয় বহনের প্রয়োজনে কর্তৃপক্ষ, বোর্ডের অনুমোদনক্রমে, উক্ত অভিকর বা চার্জ প্রতি অর্থবছরে একবার অনধিক পাঁচ শতাংশ পর্যন্ত সমন্বয় করিতে পারিবে। (৩) পাঁচ শতাংশের অধিক মুদ্রাস্ফীতিজনিত অথবা অন্য কোনো যুক্তিসংগত কারণে কর্তৃপক্ষের পরিচালনা ব্যয় বৃদ্ধি পাইলে, উক্তরূপ ব্যয় মিটানোর জন্য সরকার, লিখিত আদেশ দ্বারা, কর্তৃপক্ষকে উহার অভিকর বা চার্জের হার, সরকারের অনুমোদন ব্যতিরেকেই, বৃদ্ধি করিবার জন্য ক্ষমতা প্রদান করিতে পারিবে।

আজ সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল বেঞ্চে ই-মেইলের মাধ্যমে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট তানভীর আহমেদ এ রিট দায়ের করেন। তিনি বলেন, কোনো কারণ ছাড়াই পানির দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্তে রুল চেয়েছি রিটে।

গত ১লা এপ্রিল থেকে ঢাকা ওয়াসা আবাসিক গ্রাহকদের পানির বিল ২৫ শতাংশ বাড়িয়েছে।
বাণিজ্যিক গ্রাহকের বিল বাড়ানো হয়েছে প্রায় ৮ শতাংশ। নতুন মূল্যহার অনুযায়ী প্রতি হাজার লিটার পানির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৪ টাকা ৪৬ পয়সা, যা আগে ছিলো ১১ টাকা ৫৭ পয়সা। বাণিজ্যিকে প্রতি হাজার লিটারে ৩৭ টাকা ৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সর্বশেষ গত সেপ্টেম্বরে পানির মূল্য ৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছিলো।