এ বাজেট করোনা মোকাবেলায় উপযোগী নয়: মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত: ৬:৪২ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০২০

২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট গতানুগতিক, বাস্তবায়ন যোগ্য নয়। জাতির জন্য হতাশাজনক এ বাজেট করোনা মোকাবেলায় উপযোগী নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিকালে অনলাইন ব্রিফিংয়ে বাজেট নিয়ে দলের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আরও বলেন, স্বাস্থ্যখাতে আশানুরূপ বাজেট দেয়া হয়নি। জিডিপির ৫ ভাগ বরাদ্দ দেয়া দরকার ছিলো স্বাস্থ্যখাতে। সেখানে মাত্র ১.৩ ভাগ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যব্যবস্থা পুরোপুরিভাবে ভেঙে পড়েছে। ফখরুল বলেন, সারা দেশে আইসিইউ সম্বলিত কোনো অ্যাম্বুলেন্স নাই।

প্রস্তাবিত বাজেটকে সাদামাটা উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাজেটে মানুষের জীবন ও জীবিকার যে বিষয়টা গুরুত্ব দেয়া প্রয়োজন ছিলো তার কোনোটিই করে নি, যা করেছে তা তাদের কমিশনের বিষয়টি সামনে নিয়েই করেছে। ফখরুল বলেন, নিজেদের লোকগুলোকে তুষ্ট ও পকেট ভারী করতেই এ বাজেট।

ফখরুল আরও বলেন, ‘এই বাজেটে করোনা কাটিয়ে একটি টেকসই অর্থনৈতিক ভিত্তি গড়ে তোলার কোনো সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব নেই। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, সামাজিক সুরক্ষা এবং খাদ্য নিরাপত্তার জন্য প্রস্তাবিত বাজেটে প্রত্যাশিত অর্থ বরাদ্দ করা হয়নি। বাজেটে বর্তমানে বিপর্যস্ত অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে কার্যকর সুশাসন, স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরণ এবং সর্বস্তরে জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার কোনো বিকল্প নেই।’

ফখরুল বলেন, বাজেটের আয় ও ব্যয়ের গ্রহণযোগ্যতা ও বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। বাজেটে কেবল ‘সংখ্যার’ হিসাব মিলানো হয়েছে। বাজেটে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ৩ লক্ষ ৮২ হাজার ১১ কোটি টাকা। তন্মধ্যে এনবিআরকেই আয় করতে হবে ৩,৩০,০০০ কোটি টাকা (অর্থাৎ ৫০% এর অধিক প্রবৃদ্ধি) যা বাস্তবতা বিবর্জিত। এনবিআর এ অর্থ আহরণ করতে ব্যর্থ হবে এবং তাতে বাজেট ঘাটতির পরিমাণও বেড়ে যাবে। ব্যাংকগুলোর পক্ষে প্রস্তাবিত ডিফিসিট ফিন্যান্সিং এর ৮৫ হাজার কোটি টাকা যোগান দেয় সম্ভব হবে না। এনবিআর এর পক্ষে এতো বিপুল রাজস্ব আহরণে ব্যর্থতা ও বাংকগুলোর পক্ষে ঘাটতি অর্থায়নে অক্ষমতার কারণে বাজেট মুখ থুবড়ে পড়তে বাধ্য।