ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করবে না সৌদি

প্রকাশিত: ৭:৪৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০২০

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে ইসরায়েলের চুক্তি নিয়ে প্রথমবারের মতো প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সৌদি আরব। সৌদি জানিয়েছে, ফিলিস্তিনের সঙ্গে ইসরায়েলের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর না হওয়া পর্যন্ত ইসরায়েলের সঙ্গে কোনো কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করবে না তারা।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে জানায়, ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ক্ষেত্রে আরব আমিরাতের পথ অনুসরণ করবে না সৌদি।

গতকাল বুধবার জার্মানির বার্লিনে এক অনুষ্ঠানে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ এ কথা জানান।

ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের সম্ভাবনা নাকচ করে ফয়সাল বলেন, ফিলিস্তিনের সঙ্গে ইসরায়েলের শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর হলেই কেবল ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করতে পারে সৌদি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল আরো জানান, শান্তি প্রতিষ্ঠা ইস্যুতে ফিলিস্তিনের বিষয়টি সবার আগে। একবার এটি সম্পন্ন হয়ে গেলে বাকিগুলোও সম্ভব হবে।

২০১২ সালে সৌদি আরব মধ্যপ্রাচ্যে আরব পিস ইনিশিয়েটিভের প্রস্তাব দেয়। এই প্রস্তাব অনুযায়ী, ফিলিস্তিনকে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি এবং ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে দখলকৃত ভূখণ্ড থেকে ইসরায়েলের দখলদারত্ব প্রত্যাহার করতে হবে। এর বিনিময়ে ইসরায়েলের সঙ্গে আরব বিশ্বের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার প্রস্তাব দেয় রিয়াদ।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ইসরায়েল জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে চুক্তিতে পৌঁছেছে তারা।

ইসরাইলের সঙ্গে আমিরাতের সম্পর্ক স্থাপনের চুক্তির প্রতিবাদ জানিয়েছেন ফিলিস্তিনিরা। আরব বিশ্বের একটি বড় অর্থনৈতিক শক্তি তাদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করছে বলে মনে করে তারা।