আজ বিশ্ব পরিবেশ দিবস

প্রকাশিত: ১০:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুন ৫, ২০২০
ছবিঃইন্টারনেট

একদিকে করোনায় বিপর্যস্ত মানবজাতি; অন্যদিকে প্রকৃতির প্রাণ ফেরার আমেজ ৷ এই পরিস্থিতিতেই আজ পালিত হয়েছে বিশ্ব পরিবেশ দিবস ৷

১৯৭২ সালে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক সম্মেলনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচির (ইউএনইপি) উদ্যোগে প্রতি বছর ৫ ই জুন সারাবিশ্বে ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস’ পালিত হয়।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও গুরুত্বের সাথে দিবসটি পালিত হতো। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার সেভাবে দিবসটি পালনের কোন সুযোগই নেই। করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে এ বছর আয়োজক দেশ জার্মানি ও কলম্বিয়া ভার্চুয়াল মাধ্যমেই বিশ্ব পরিবেশ দিবসের আয়োজন করেছে। দিবসটি পালনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, পরিবেশ সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো। এ কারণে প্রতিবছরই ভিন্ন ভিন্ন প্রতিপাদ্যে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয়। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো ‘প্রকৃতির জন্য সময়’ (Time for Nature)। এর লক্ষ্য হলো কীভাবে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করে বিশ্বকে সামনে এগিয়ে নেয়া যায় ৷

জাতিসংঘ বলছে, জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ না করাতে আমাদের পরিবেশের ভারসাম্যই শুধু নষ্ট হচ্ছে না আমরা এর মাধ্যমে আমাদের জীবনকে ধ্বংস করছি। তাই অন্তত নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য হলেও আমাদের পরিবেশ ও প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষা করা দরকার ৷ আমরা জীববৈচিত্র্য রক্ষা করলে শুধু খাদ্যের যোগানই পাব না বরং ওষুধসহ নির্মল পানি এবং বাতাস পাব, যা মানুষের জীবন ধারণ এবং সুস্থতার জন্য খুবই প্রয়োজন ৷

করোনা মহামারির প্রাদুর্ভাবে গত চারমাস ধরে মানুষ প্রায় গৃহবন্দি ৷ এতে শব্দ দূষণ, বায়ু দূষণ, পানি দূষণসহ পরিবেশ দূষিত হওয়ার সকল মাধ্যমই স্থগিত প্রায় ৷ ফলে দূষিত শহরগুলো আজ নির্মল হয়েছে, বাতাসে কমে গেছে কার্বনডাই অক্সাইড আর সিসার বিষ, কমে গেছে শব্দ দূষণও, পরিবেশ আর প্রকৃতি ফিরে পাচ্ছে তার আপন রূপ ৷ বিশেষজ্ঞরা বলেন, এই পরিস্থিতি থেকে শিক্ষা নিয়ে জীববৈচিত্র আর পরিবেশ-প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায় আমাদেরকে সকল প্রকার দূষণ কমিয়ে আনতে হবে ৷ পরবর্তী সময়ের জন্য করোনা কালীন এটাই আমাদের জন্য বড় শিক্ষা ৷