অর্থনীতিকে নতুন সম্ভাবনায় রূপ দেবে এই বাজেট: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত: ৮:৪৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২০
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলছেন- ‘নতুন অর্থবছরের অনুমোদিত বাজেট দেশের ভবিষ্যৎ অর্থনীতিকে অধিকতর বহুমুখীকরণের সুযোগ সৃষ্টি করবে এবং নতুন সম্ভাবনায় রূপ দেবে।’

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট অনুমোদন পরবর্তী সময়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন- ‘করোনাভাইরাসে সৃষ্ট সংকটময় পরিস্থিতিকে সম্পূর্ণভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করে সংকটকালীন ও সংকট পরবর্তী সম্ভাব্য অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার গতিপথ নির্ণয়ের লক্ষ্যকে সামনে রেখেই গৃহীত হয়েছে এবারের বাজেট। এটি জীবন-জীবিকার মধ্যে ভারসাম্য বজায় রেখে দেশকে এগিয়ে নিতে শেখ হাসিনা সরকারের সময়োচিত সাহসী চিন্তার ফসল।’

‘করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা ও কর্মোদ্যোগ বিশ্বখ্যাত দি ইকোনমিস্ট, ফোর্বস, ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামসহ অন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছে। দি ইকোনমিস্ট গত ২ মে গবেষণামূলক এক প্রতিবেদনে চারটি মানদণ্ডের ভিত্তিতে ৬৬টি উদীয়মান সফল অর্থনীতির দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান নবম।’

সেতুমন্ত্রী আরও বলেন- ‘শেখ হাসিনা করোনাভাইরাসের অর্থনৈতিক প্রভাব কার্যকরভাবে মোকাবিলা, জরুরি স্বাস্থ্যসেবা খাতের ব্যবস্থাপনা, কর্মসংস্থান টিকিয়ে রাখা এবং অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে এ পর্যন্ত প্রায় এক লাখ তিন হাজার ১১৭ কোটি টাকার ১৯টি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। এই প্রণোদনা প্যাকেজ দক্ষিণ এশিয়ার সর্বোচ্চ, যা জিডিপির ৩.৭ শতাংশ।’

‘বিগত ১২ বছরে ধারাবাহিকভাবে দারিদ্র্য বিমোচনের হার ছিলো গড়ে ১.৪ শতাংশ। অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে সুবিশাল আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করে তা বাস্তবায়নের কারণে কোভিড ১৯ মহামারীর ফলে অর্থনৈতিক কার্যক্রম থমকে যাওয়ার প্রভাবে দেশে দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার যে আশঙ্কা দেখা দিয়েছিলো, শেখ হাসিনার সরকার তা অনেকটাই রোধ করতে পারবে বলে আশা করি’, যোগ করেন ওবায়দুল কাদের।